৩০ কেন্দ্র থেকে বিএনপির এজেন্টদের বের করে দেওয়ার অভিযোগ | timenewsbd.com

৩০ কেন্দ্র থেকে বিএনপির এজেন্টদের বের করে দেওয়ার অভিযোগ

খুলনা করেসপন্ডেন্ট
টাইম নিউজ বিডি,
১৫ মে, ২০১৮ ১৪:২৬:২১
#

খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ৩০টি কেন্দ্র থেকে ধানের শীষ প্রতীকের এজেন্টদের ঢুকতে দেয়নি বা বের করে দিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির মেয়র পদপ্রার্থী নজরুল ইসলাম মঞ্জু।


আজ মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে একযোগে এ সিটি করপোরেশনের ২৮৯টি ভোটকেন্দ্রে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। তার আগে এজেন্টরা দলীয় পরিচয় নিয়ে কেন্দ্রে প্রবেশ করতে চাইলে তাদের বাধা দেওয়া হয় বলে মঞ্জু অভিযোগ করেন।


বিএনপির প্রার্থী ভোট দেন নগরীর রহিমা খাতুন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। ভোটদান শেষে বেরিয়ে তিনি সাংবাদিকদের কাছে এসব অভিযোগ করেন। তিনি এ ব্যাপারে দ্রুত নির্বাচন কমিশনকে ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।


তবে এ ব্যাপারে নির্বাচন কমিশনের রিটার্নিং কর্মকর্তার সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাঁর কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।


এর আগে বিএনপির সিটি করপোরেশন নির্বাচনের প্রধান সমন্বয়ক শফিকুল ইসলাম মনাও দুটি কেন্দ্রে এজেন্টদের ঢুকতে দেওয়া হয়নি বলে নির্বাচন কমিশনের কাছে অভিযোগ করেছেন।


সকালে ভোটগ্রহণ শুরুর পর নগরীর নূরনগর স্কুল, ইউসেপ স্কুল, হাজী ফয়েজ উচ্চ বিদ্যালয়, পোর্ট স্কুল ও এরশাদ আলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র পরিদর্শন করেন এই প্রতিবেদক। তিনি একমাত্র এরশাদ আলী স্কুলে বিএনপির এজেন্ট দেখতে পেয়েছেন। বাকি চার কেন্দ্রে বিএনপির এজেন্ট ছিল না।


এসব কেন্দ্রের বাইরে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী ও অন্যান্য কাউন্সিলর প্রার্থীদের কেন্দ্র থাকলেও সেখানে বিএনপি প্রার্থীর কোনো কেন্দ্র ছিল না।


রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, খুলনা সিটি করপোরেশনে প্রথমবারের মতো মেয়র পদে দলীয় প্রতীকে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। মেয়র পদে যে পাঁচজন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন তাঁরা হলেন, আওয়ামী লীগের তালুকদার আবদুল খালেক (নৌকা), বিএনপির নজরুল ইসলাম মঞ্জু (ধানের শীষ), জাতীয় পার্টির এসএম শফিকুর রহমান (লাঙল), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের অধ্যক্ষ মাওলানা মুজ্জাম্মিল হক (হাত পাখা) এবং বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি-সিপিবির মিজানুর রহমান বাবু (কাস্তে)।


খুলনা সিটিতে মোট ভোটার চার লাখ ৯৩ হাজার ৯৩ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার দুই লাখ ৪৮ হাজার ৯৮৬ ও নারী দুই লাখ ৪৪ হাজার ১০৭ জন। ভোটকেন্দ্র ২৮৯টি। প্রিজাইডিং অফিসার, সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার ও পোলিং অফিসার রয়েছে ৪ হাজার ৯৭২ জন।


নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের উপসচিব (চলতি দায়িত্ব) ফরহাদ হোসেন জানান, খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে দুটি ভোটকেন্দ্রে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহার হচ্ছে। নগরীর ২৪ নম্বর ওয়ার্ডের ২০৬ নম্বর কেন্দ্র ও ২৭ নম্বর ওয়ার্ডের ২৩৯ নম্বর কেন্দ্রে মোট ১০টি ইভিএম রয়েছে।এএস


 

Print