ভোট দিলেন মঞ্জু ও খালেক

স্টাফ রিপোর্টার
টাইম নিউজ বিডি,
১৫ মে, ২০১৮ ১৫:২৬:১৬
#

খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের মেয়র প্রার্থী তালুকদার আব্দুল খালেক ও বিএনপি মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী নজরুল ইসলাম মঞ্জু ভোট দিয়েছেন।


মঙ্গলবার সকাল আটটার দিকে খুলনা শহরের ২২ নম্বর ওয়ার্ডের পাইওনিয়ার গার্লস স্কুল কেন্দ্রে ভোট দেন খালেক এবং প্রায় কাছাকাছি সময়ে নগরীর ২৭ নম্বর ওয়ার্ডের রহিমা খাতুন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভোট দেন মঞ্জু।


প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আজ সকাল আটটার কিছুক্ষণ আগেই নেতাকর্মীদের নিয়ে পাইওনিয়ার গার্লস স্কুল কেন্দ্রে আসেন তালুকদার আব্দুল খালেক। পরে আটটার দিকে ভোট দিয়ে তিনি কেন্দ্র থেকে বের হয়ে আসেন।


ভোট শেষে তালুকদার আবদুল খালেক বলেন, ভোটের পরিবেশ নিয়ে আমি খুশি। এ নিয়ে কোনো শঙ্কা নেই। যেকোনো ফল মেনে নেব। তবে বিজয়ের বিষয়ে আমি আশাবাদী।


২০১৪ সালে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাগেরহাট-৩ আসনের সংসদ সদস্য ছিলেন খালেক। এর আগে তিনি ১৯৯১, ৯৬ এবং ২০০১ সালের নির্বাচনেও সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন।


২০১৩ সালের ১৫ জুন অনুষ্ঠিত খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আব্দুল খালেক বিএনপি সমর্থিত ঐক্যবদ্ধ নাগরিক ফোরামের প্রার্থী মোহাম্মদ মনিরুজ্জামানের কাছে হেরে গিয়েছিলেন।


এদিকে, মঙ্গলবার সকাল আটটার দিকে নেতাকর্মীদের নিয়ে রহিমা খাতুন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আসেন মঞ্জু। এরপর তিনি ভোট প্রদান করেন।


নির্বাচনে বিজয়ের বিষয়ে মঞ্জু আত্মবিশ্বাসী হলেও ৩০টি ভোটকেন্দ্র থেকে বিএনপি প্রার্থীর পোলিং এজেন্টদের বের করে দেয়া হয়েছে বলে ভোট দেয়া শেষে অভিযোগ করেছেন।


এসময় তিনি আরও বলেন, ভোটকেন্দ্রগুলোর অবস্থা খুবই খারাপ। ভোটাররা খুব ভয়ে আছেন। হামলা-সহিংসতার আশঙ্কায় অনেকে ভোট কেন্দ্রে আসতে ভয় পাচ্ছেন।


আওয়ামী লীগ ভোট ডাকাতি করে নির্বাচনে জয়ের চেষ্টা করতে পারে আশঙ্কা প্রকাশ করে মঞ্জু বলেন, ভোট ডাকাতি হলে এই নির্বাচন মেনে নেবেন না তিনি।


কেসিসি নির্বাচনে মেয়র পদে আ’লীগের তালুকদার আব্দুল খালেকসহ পাঁচজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তারা হলেন-বিএনপি মনোনীত নজরুল ইসলাম মঞ্জু (ধানের শীষ), জাতীয় পার্টি মনোনীত শফিকুর রহমান মুশফিক (লাঙল), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মনোনীত মাওলানা মুজ্জাম্মিল হক (হাত পাখা) ও সিপিবি মনোনীত মো. মিজানুর রহমান বাবু (কাস্তে)। বাকি চার প্রার্থী নিজ এলাকার ভোট কেন্দ্রে ভোট দেবেন।


সকাল ৮টা থেকে খুলনা সিটি করপোরেশন (কেসিসি) নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। ভোট দেয়ার জন্য নাগরিকরা ভোটকেন্দ্রগুলোতে সারি বেঁধে দাঁড়িয়েছে। ভোটগ্রহণ চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত।


নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা গেছে, খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মোট ভোটার রয়েছেন ৪ লাখ ৯৩ হাজার ৯৩ জন। এর মধ্যে পুরুষ ২ লাখ ৪৮ হাজার ৯৮৬ ও নারী ২ লাখ ৪৪ হাজার ১০৭ জন। ভোটকক্ষ ১ হাজার ১৭৮টি। ভোট কেন্দ্র ও ভোট কক্ষে দায়িত্ব পালন করবেন ৪ হাজার ৯৭২ জন কর্মকর্তা।


এর মধ্যে প্রিজাইডিং অফিসার রয়েছেন ২৮৯ জন, সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার ১ হাজার ৫৬১ জন এবং পোলিং এজেন্ট রয়েছেন ৩ হাজার ১২২ জন।


এ নির্বাচনে ২৮৯টি কেন্দ্রের মধ্যে স্থায়ী ভোট কক্ষ রয়েছে ১ হাজার ৫৬১টি। আর অস্থায়ী ভোট কক্ষ রয়েছে ৫৫টি।


 

Print