আজান বন্ধ রাখার ইসরায়েলি সিদ্ধান্ত বর্ণবাদী: গ্র্যান্ড মুফতি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
টাইম নিউজ বিডি,
১৫ মে, ২০১৮ ২০:৫৫:০৫
#

জেরুজালেমে মার্কিন দুতাবাস স্থানান্তরের দিনে জেরুজালেমে আজানের ওপর আরোপিত ইসরায়েলি নিষেধাজ্ঞাকে বর্ণবাদী আখ্যা দিয়েছেন জেরুজালেম ও ফিলিস্তিনের গ্র্যান্ড মুফতি শেখ মোহাম্মদ আহমেদ হুসেইন। মার্কিন দূতাবাস উদ্বোধন উপলক্ষে এদিন আজান বন্ধ রাখার নির্দেশনা জারি করে ইসরায়েলি কর্তৃপক্ষ।


ফিলিস্তিনিদের ব্যাপক বিক্ষোভের মধ্যেই জেরুজালেমে দূতাবাস স্থানান্তরের সিদ্ধান্তবাস্তবায়ন করে যুক্তরাষ্ট্র। দূতাবাস স্থানান্তরের উৎসবের কথা উল্লেখ করে জেরুজালেম পৌরসভার পক্ষ থেকে এদিন আজান বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়। 


মুফতি শেখ মোহাম্মদ আহমেদ হুসেইন এক প্রতিবেদনে বলেন, এই বণর্বাদী সিদ্ধান্ত খুবই বিপদজনক এবং সব ধর্মীয় ও আন্তর্জাতিক আইনের লঙ্ঘন। এসব আইনে প্রার্থনার স্বাধীনতার নিশ্চয়তা করা একটি স্বীকৃত বিষয়। তিনি আরও বলেন, যারা আজান শুনলে কষ্ট পান তাদের জেরুজালেম ছেড়ে চলে যাওয়া উচিত।


গত বছরের ৬ ডিসেম্বর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জেরুজালেমকে ইসরায়েলের একক রাজধানীর স্বীকৃতি দেন। বিশ্বজুড়ে নিন্দা আর তুমুল প্রতিবাদের মধ্যেও দূতাবাস স্থানান্তরের সিদ্ধান্তে অনড় থাকে যুক্তরাষ্ট্র। সোমবার ট্রাম্পের এই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন হওয়ার প্রতিক্রিয়ায় শেখ মোহাম্মদ বলেন, নাকবা দিবসে জেরুজালেমে মার্কিন দূতাবাস স্থানান্তর করার বিষয়টি এক ধরনের পরিহাস। ‘ দূতাবাস স্থানান্তর বাস্তবতাকে পরিবর্তন করবে না। আর জেরুজালেম ফিলিস্তিনি রাষ্ট্রের চিরন্তর রাজধানী হিসেবেই থাকবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।


সোমবার দূতাবাস স্থানান্তরের প্রতিবাদে জোরালো হওয়া বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করতে সীমান্ত এলাকার ওই বিক্ষোভে অংশ নেন লাখো মুক্তিকামী ফিলিস্তিনি। এদিনের বিক্ষোভে অংশ নিতে গিয়ে ইসরায়েলি বাহিনীর গুলিতে প্রাণ হারিয়েছেন ৫৮ ফিলিস্তিনি।


 


এস আলম

Print