কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত ২, দিনাজপুরে গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার

স্টাফ রিপোর্টার
টাইম নিউজ বিডি,
০৮ জুন, ২০১৮ ১৩:৫৮:১০
#

ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল উপজেলা এবং রংপুর সদরে পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধের ঘটনায় দুইজন ‘মাদক ব্যবসায়ী’নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। এদিকে দিনাজপুর সদর উপজেলায় এক কথিত মাদক ব্যবসায়ীর গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার।


রাণীশংকৈল থানার ওসি আব্দুল মান্নান ও রংপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাইফুর রহমান এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। নাজপুর কোতয়ালি থানার ওসি রেদওয়ানুর রহিম জানান, দিনাজপুর সদর উপজেলার খাড়িপাড়া থেকে একজন ‘মাদক ব্যবসায়ী’র গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।


পুলিশ জানান, ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল উপজেলার নেকমরদ এলাকায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’শামীম হোসেন (৪২) নামে একজন ‘মাদক ব্যবসায়ী’নিহত ও বেলাল হোসেন নামে আরও একজন গুলিবিদ্ধ হয়েছে। বৃহস্পতিবার ( ৭ জুন) রাত দেড়টায় দিকে এ ঘটনা ঘটে। নিহত শামীম হোসেন রাণীশংকৈল উপজেলার নেকমরদ এলাকার মৃত আব্দুল সাত্তারের ছেলে। পুলিশের দাবি, এসময় দুই পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন।


রাণীশংকৈল থানার ওসি আব্দুল মান্নান বলেন, ঘটনাস্থল থেকে ৩শ’পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে। শামীমের বিরুদ্ধে রাণীশংকৈল থানায় মাদকের একাধিক মামলা রয়েছে।


এ ব্যাপারে পুলিশ জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে উপজেলার ধর্মগড় এলাকার ভদ্রেশ্বরী এলাকায় অভিযান চালায় পুলিশ। এসময় শামীমসহ কয়েকজন মাদক ব্যবসায়ী পুলিশের উপস্থিতি বুঝতে পেরে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। এরপর মাদক ব্যবসায়ীদের লক্ষ্য করে পাল্টা গুলি চালায় পুলিশ। গুলি বর্ষণের ফলে শামীম হোসেন (৪২) নামে এক মাদক ব্যবসায়ী ঘটনাস্থলে নিহত হয়। বেলাল হোসেন নামে তার এক সহযোগীও গুলিবিদ্ধ হয়। এ ঘটনায় আহত হয়েছে দুই পুলিশ সদস্য। পরে ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ শামীমের লাশ উদ্ধার করে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে মর্গে পাঠায়।  


রংপুর নগরীর কুকরুল এলাকায় পুলিশের সঙ্গে কথিতবন্দুকযুদ্ধেআবু মুসা (২৭) নামের একজন কথিতমাদক ব্যবসায়ীনিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। শুক্রবার (৮ জুন) ভোরে এ ঘটনা ঘটে।


পুলিশ জানায়, এসময় ঘটনাস্থল থেকে ১০২ পিস ইয়াবা, ৪৭ বোতল ফেনসিডিল ও একটি পিস্তল উদ্ধার করা হয়।


রংপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাইফুর রহমান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ জানতে পারেন যে, কয়েকজন কথিত মাদক ব্যবসায়ী নগরীর কুকরুল এলাকায় অবস্থান করছে। খবর পেয়ে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে গেলে তারা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে। এসময় ‘মাদক ব্যবসায়ী’ আবু মুসা ওরফে বিষখালি নিহত হয়। নিহত আবু মুসার বাড়ি নগরীর হনুমানতলা এলাকায়। তাঁর বাবার নাম আব্দুল কুদ্দুস। তার নামে মাদক আইনে ১১টি মামলা রয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।


এছাড়াও দিনাজপুর সদর উপজেলার খাড়িপাড়া নামক এলাকা থেকে একজন কথিত মাদক ব্যবসায়ীর গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।


পুলিশের দাবি, টাকা ভাগাভাগি নিয়ে দুই গ্রুপ ‘মাদক ব্যবসায়ী’র মধ্যে গোলাগুলিতে ওই ব্যক্তি নিহত হয়। তার পরিচয় পাওয়া যায়নি। ঘটনাস্থল থেকে ১০০ বোতল ফেনসিডিল, একটি ওয়ান শ্যুটার গান ও একটি সামুরাই ছোরা উদ্ধার করা হয়েছে।


দিনাজপুর কোতয়ালি থানার ওসি রেদওয়ানুর রহিম এসব তথ্য জানিয়েছেন।   


এমবি    


 


 

Print