‘জাতীয় পার্টির সদস্য ছিলাম না, মন্ত্রীও ছিলাম না’

স্টাফ রিপোর্টার
টাইম নিউজ বিডি,
১২ জুন, ২০১৮ ০১:২৪:৪৮
#

জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্যদের হুঁশিয়ার করে দিয়ে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, ফের তাঁকে জাতীয় পার্টির মন্ত্রী বললে ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন তিনি। মুহিত বলেন, ‘আমি কোনোদিন জাতীয় পার্টির সদস্য ছিলাম না। কোনোদিন জাতীয় পার্টির মন্ত্রীও ছিলাম না।’


আজ সোমবার জাতীয় সংসদে এসব কথা বলেন অর্থমন্ত্রী। পরে জাতীয় পার্টির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কাজী ফিরোজ রশিদ এ বিষয়ে কথা বলেন।


অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘আমি কোনোদিন জাতীয় পার্টির সদস্য ছিলাম না। কোনোদিন জাতীয় পার্টির মন্ত্রীও ছিলাম না। অনেকবার এটা বলেছি। আমি যখন জেনারেল এরশাদের সামরিক সরকার ছিল সে সময় মন্ত্রী ছিলাম, জাতীয় পার্টির তখন জন্মই হয় নাই। জাতীয় পার্টির জন্ম হওয়ার আগে আমি সে সরকার থেকে পদত্যাগ করে চলে যাই। এটা আমার অনুরোধ হবে জাতীয় পার্টির সদস্যরা এটা ভবিষ্যতে মনে রাখবেন, যদি মনে না রাখেন তাহলে আমি তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করার চেষ্টা করব।’


জাতীয় পার্টির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কাজী ফিরোজ রশিদ বলেন, ‘সামরিক সরকারের অংশ হিসেবে এ সংসদে বাজেট দিয়েছিলেন। আমাদের জাতীয় পার্টি উনি কখনো করেন নাই। এটা আমি এ রেকর্ডে রেখে দিতে চাই। আমি উনাকে আশ্বস্ত করতে চাই যে আপনার মতো এত জ্ঞানী, অভিজ্ঞ ব্যক্তিকে জাতীয় পার্টি কোনো দিন তাদের দলে ভবিষ্যতে স্থান দিবে না, আমাদের সে পরিকল্পনা নেই।’


অর্থমন্ত্রী হিসেবে মোট ১২টি বাজেট উপস্থাপন করেছেন আবুল মাল আবদুল মুহিত। ২০০৯-১০ অর্থবছর থেকে চলতি অর্থবছর পর্যন্ত টানা ১০টি বাজেট উপস্থাপন করেছেন মুহিত। অন্য দুইটি যখন উত্থাপন করেন তখন রাষ্ট্রক্ষমতায় ছিলেন লেফটেন্যান্ট জেনারেল (অব.) হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ।


অর্থ মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, ১৯৮২ সালের মার্চ মাস থেকে ১৯৮৩ সালের ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত আবুল মাল আবদুল মুহিত দেশের অর্থ ও পরিকল্পনামন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করে। ওই দায়িত্বে থাকা অবস্থায় ১৯৮২-৮৩ অর্থবছর ও ১৯৮৩-৮৪ অর্থবছরের বাজেট উপস্থাপন করেন অর্থমন্ত্রী।


এদিকে জাতীয় পার্টি গঠিত হয় ১৯৮৬ সালে। দলটির ওয়েবসাইটে বলা হয়, ‘১৯৮৬ সালের ১ জানুয়ারি জাতীয় ফ্রন্টের ধানমণ্ডিস্থ কার্যালয়ে এক জনাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে জাতীয় পার্টি গঠনের ঘোষণা দেওয়া হয়।’


সেখানে আরো বলা হয়, ‘জাতীয় ফ্রন্টের পাঁচটি শরিক দল একত্রিত হয়ে জাতীয় পার্টির আত্মপ্রকাশ ঘটে। নবগঠিত পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান নিযুক্ত হন রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ এবং মহাসচিব নিযুক্ত হন অধ্যাপক এম এ মতিন।’


এমআর

Print