ঈদুল ফিতরের আদর্শে বৈষম্য ও শোষণমুক্ত সমাজ গঠনের আহবান  

টাইম ডেস্ক
টাইম নিউজ বিডি,
১৪ জুন, ২০১৮ ২০:২৭:৫৯
#

পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষে নগরবাসীসহ মুসলিম উম্মাহর প্রতি শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের আমীর নূরুল ইসলাম বুলবুল এবং কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও মহানগরী দক্ষিণের সেক্রেটারি ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদ।


আজ (বৃহস্পতিবার) নগরবাসীর উদ্দেশ্যে এক শুভেচ্ছা বাণীতে মহানগরী নেতৃদ্বয় বলেন, “এক মাস সিয়াম সাধনা শেষে খুশীর সওগাত নিয়ে পবিত্র ঈদুল ফিতর আমাদের দ্বারে সমাগত। ঈদুল ফিতর ধনী-গরিবের ভেদাভেদ ভুলে মানুষকে ভাতৃত্বের বন্ধনে আবদ্ধ করে শান্তি ও সহমর্মিতার অনুপম শিক্ষা দেয় এবং সামাজিক, রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক বৈষম্য দূর করে একটি শোষণমুক্ত সমাজ গঠনের জন্যে অনুপ্রেরণা দেয়।”  


“আমরা যদি বাস্তব জীবনে ইসলামী আদর্শ অনুসরণ করে সমাজে ন্যায় ও ইনসাফ কায়েম করতে পারি তাহলেই আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জন করা সম্ভব।”  


নেতৃবৃন্দ ঈদুল ফিতরের আদর্শে উজ্জীবিত হয়ে বৈষম্য ও শোষণমুক্ত সমাজ গঠনে সবাইকে এগিয়ে আসার আহবান জানান।


জামায়াত নেতারা বলেন, “সরকারের গুম-খুন ও বিচার বহির্ভুত হত্যায় চারদিকে নির্যাতিত, নিপীড়িত ও স্বজনহারা মানুষের আর্তনাদে এক শ্বাসরুদ্ধকর পরিস্থিতি বিরাজ করছে। ফলে এবারের ঈদ-উল-ফিতরের আনন্দ অনেকটায় ম্লান হতে চলেছে। সরকার রাষ্ট্রযন্ত্রের সহায়তায় ক্ষমতাকে কুক্ষিগত করে রাখার অপচেষ্টা চালাচ্ছে।


তারা গনতান্ত্রিক মুল্যবোধকে ধ্বংস করে ক্ষমতা পাকাপোক্ত করতে চাচ্ছে। এজন্য তারা একদলীয় শাসন ব্যবস্থার মাধ্যমে ফ্যাসীবাদ কায়েম করে দেশের জণগণকে জি‌ম্মি করে তাদের ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়েছে। ফলে জাতীয় জীবনে ঈদকে অর্থবহ ও আনন্দবহ করতে হলে ফ্যাসীবাদী সরকারের পতনের কোন বিকল্প নেই।”


তাই নেতৃবৃন্দ নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন, জনগনের অধিকার প্রতিষ্ঠা ও ফ্যাসিবাদমুক্ত দেশ গড়ার প্রত্যয়ে নগরবাসীকে ঐক্যবদ্ধ  হওয়ার আহবান জানান। 


জামায়াতের ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের প্রচার সহকারী আব্দুল্লাহ সাইফ স্বাক্ষরিত এক প্রেসবার্তায় নূরুল ইসলাম বুলবুল এবং ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদ এইসব কথা বলেন। 


নেতৃদ্বয় সর্বস্তরের নগরবাসীসহ মুসলিম উম্মাহর প্রতি পবিত্র ঈদ-উল-ফিতরের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান এবং দেশের দুঃস্থ, দরিদ্র ও সঙ্গতিহীন মানুষের প্রতি ভ্রাতৃত্ব ও সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়ে সমাজের বিত্তবান মানুষরা ঈদের আনন্দকে সকলের মাঝে ছড়িয়ে দেবেন বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন।


এমবি   

Print