৪৮১রানের জবাবে ২৩৯ রানেই গুটাল অস্ট্রেলিয়া, সিরিজ ইংল্যান্ডের

স্পোর্টস ডেস্ক
টাইম নিউজ বিডি,
২০ জুন, ২০১৮ ১৬:২৩:৩৯
#

একদিকে চলছে ফুটবল বিশ্বকাপ। সেখানে নিজেদের প্রথম ম্যাচে জয় পেয়েছে ইংল্যান্ডের জাতীয় ফুটবল দল। এই জয়ই হয়ত অনুপ্রাণিত করেছিল দেশটির ক্রিকেট দলকেও। ট্রেন্ট ব্রিজে মঙ্গলবার তারা অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে বিশ্ব রেকর্ড গড়েই জিতে নিয়েছে ওয়ানডে সিরিজ। তৃতীয় ওয়ানডেতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ইংলিশরা ৫০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ৪৮১ রানের মাউন্ট এভারেস্টেই উঠে পড়ে। জবাবে ৩৭ ওভারে ২৩৯ রানে অল আউট হয়ে যায় অস্ট্রেলিয়া। ২৪২ রানের পরাজয়, যা দেশটির ওয়ানডে ইতিহাসে বৃহত্তম। পাঁচ ম্যাচ সিরিজের প্রথম তিনটি জিতে ইংলিশরা সিরিজ নিজেদের করে নিয়েছে। ১৯৮৬-৮৭ সালের পর এই প্রথম তারা অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টানা দুইটি ওয়ানডে সিরিজ জিতল।


এদিন টস জিতে ইংল্যান্ডকে প্রথমে ব্যাট করার আমন্ত্রণ জানায় অস্ট্রেলিয়া। প্রথম থেকেই হাত খুলে খেলতে থাকেন দুই ইংলিশ ওপেনার। তাদের ঝড়ে ১৯.৩ ওভারে ১৫৯ রান উঠে যায় স্কোরবোর্ডে। জেসন রয় ৮২ রান করে উইকেট হারান। দ্বিতীয় উইকেটে ৮৮ বলে ১৫১ রানের জুটি গড়েন অ্যালেক্স হেলস ও জনি বেয়ারেস্টো। বেয়ারেস্টো ৯২ বলে ১৫ চার ও ৫ ছয়ে ১৩৯ রান করেন। তিনি দলীয় ৩১০ রানে উইকেট হারান।


দলীয় ৩৩৫ রানে উইকেট হারান জস বাটলার। চতুর্থ উইকেটে ৬১ বলে ১২৪ রানের জুটি গড়েন হেলস ও অধিনায়ক ইয়ন মরগান। দলীয় ৪৫৯ রানে পরপর দুই বলে হেলস ও মরগান বিদায় নেন। তার আগে ৯২ বলে ১৬ চার ও ৫ ছয়ে হেলস ১৪৭ রান করেন। ৩০ বলে ৩ চার ও ৬টি ছক্কায় মরগানের সংগ্রহ ৬৭ রান। শেষ পর্যন্ত ৬ উইকেট হারিয়ে ৪৮১ রান করে দলটি।


এদিন ইংলিশ ব্যাটসম্যানরা ২১টি ছয় ও ৪১টি চার হাঁকিয়েছেন। অজি পেসার ঝাই রিচার্ডসন ৩ উইকেট পেলেও ৯২ রান দেন। ৯ ওভারে ১০০ রান দেন আরেক পেসার অ্যান্ড্রু টাই। ওয়ানডেতে ইনিংসে অন্তত ১০০ রান দেয়া বোলারদের তালিকায় তিনি ১২ নম্বরে। ১১৩ রান দিয়ে শীর্ষে আছেন আরেক অজি পেসার মিক লুইস। ২০০৬ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার রেকর্ড গড়া ৪৩৮ রানের ইনিংসে তিনি এই কাণ্ড ঘটিয়েছিলেন।


ব্যাট করতে নেমে অজিদের শুরুটা একেবারে খারাপ হয়নি। ২৭ রানে প্রথম উইকেট হারানোর পর তারা দ্বিতীয় উইকেট হারায় ৯৫ রানে, ১২.৩ ওভারে। ১০০ রানে তৃতীয় উইকেট হারানোর পর অ্যারন ফিঞ্চ ও মার্কাস স্টোইনিসের ৫২ রানের জুটি আশা দেখাচ্ছিল দলটিকে। তবে দলীয় ১৫২ রানে উইকেট হারান ফিঞ্চ।


এরপর তেমন কোন জুটি গড়ে ওঠেনি। গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, অ্যাশটন অ্যাগাররা কিছুটা চেষ্টা করেছিলেন। তবে তার শুধু পরাজয়ের ব্যবধান কমাতে পারেন। নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারানো শুরু করে অস্ট্রেলিয়া। অল আউট হয়ে ২৩৯ রানেই শেষ হয়ে যায় দলটির ইনিংস। ইংলিশ স্পিনার আদিল রশিদ ৪৭ রান খরচায় ৪ উইকেট পান। ৩ উইকেট পান আরেক স্পিনার মঈন আলি।


ম্যাচসেরার পুরস্কার পেয়েছেন অ্যালেক্স হেলস।

Print