টাকার বিনিময়ে আপস হচ্ছে এমপি পুত্রের গাড়িচাপার ঘটনা

টাইম ডেস্ক
টাইম নিউজ বিডি,
২৩ জুন, ২০১৮ ১৪:১৭:৪২
#

রাজধানীর মহাখালী ফ্লাইওভারে নোয়াখালী-৪ আসনের এমপি একরামুল করীম চৌধুরীর ছেলে শাবাব চৌধুরীর গাড়িচাপায় পথচারী মৃত্যুর ঘটনায় টাকার বিনিময়ে আপসের প্রস্তাব করা হয়েছে।


নিহত সেলিম বেপারীর (৪৮) স্বজনদের সঙ্গে বৃহস্পতিবার রাতে বৈঠক করে এমপি পক্ষের লোকজন ৩০ লাখ টাকায় বিষয়টি আপসের প্রস্তাব দিয়েছেন। দুই-এক দিনের মধ্যে আপস হতে পারে বলেও জানা গেছে।


এদিকে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে শুক্রবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, বিষয়টি তদন্তাধীন রয়েছে। তদন্তের পরই সুনির্দিষ্টভাবে জানা যাবে কে গাড়ি চালাচ্ছিলেন। তবে এটুকু বলতে পারি কেউ আইনের ঊর্ধ্বে নন, তিনি যদি এমপিপুত্রও হন।


গত মঙ্গলবার রাতে গাড়িচাপায় মৃত্যুর পর কাফরুল থানায় মামলা হয়। কিন্তু চার দিনেও পুলিশ কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি। জব্দ করতে পারেনি গাড়িটিও। পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, সিসিটিভির ফুটেজ দেখে জড়িতদের শনাক্ত করা হবে। এছাড়া গাড়ির নম্বর প্লেট দিয়ে বিআরটিএ থেকে কাগজ সংগ্রহ করে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কাফরুল থানার এসআই সুজন কর্মকার বলেন, আমরা তদন্ত করছি। তবে এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার বা গাড়িটি জব্দ করা সম্ভব হয়নি।


টাকার বিনিময়ে বিষয়টি আপসের বিষয়ে নাম প্রকাশ না করার শর্তে সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার রাতে এ বিষয়ে নিহতের স্বজনদের সঙ্গে এমপি একরামুল করীম চৌধুরীর পক্ষের লোকজনের বৈঠক হয়েছে।


নিহত সেলিম বেপারী নাওয়ার প্রপার্টিজ লিমিটেড নামে একটি কোম্পানির গাড়ি চালাতেন। ওই কোম্পানির ডিওএইচএসের (বাড়ি-৪৬৫, ফ্লোর-১, রোড-৮, বারিধারা) অফিসে এ বৈঠক হয়। এমপির পক্ষ থেকে সেখানে চারজন উপস্থিত ছিলেন।


এছাড়া ওই কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ইমরান হোসেন এবং নিহতের জামাতা আরিফুল ইসলাম ভুইয়াসহ পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।


প্রায় দুই ঘণ্টার বৈঠকে এমপির পক্ষ থেকে বলা হয়, নিহতের পরিবারকে সমঝোতার মাধ্যমে টাকা দেয়া হবে। তবে দায়ের করা মামলাটি তুলে নিতে হবে। আর এ ঘটনায় এমপির পরিবারের কারও জড়িত থাকার কথা বলা যাবে না।


কাফরুল থানার ওসি শিকদার মোহাম্মদ শামীম হোসেন এ বিষয়ে বলেন, আমি জরুরি মিটিংয়ে আছি। পরে কথা বলি। পরে একাধিকবার চেষ্টা করেও তাকে আর ফোনে পাওয়া যায়নি।


গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টায় মহাখালী ফ্লাইওভারের ওপর বেপরোয়া গতিতে আসা একটি প্রাইভেট কার (ঢাকা মেট্রো-ঘ-১৩-৭৬৫৫) সেলিম ব্যাপারীকে চাপা দিয়ে দ্রুত বিজয় সরণির দিকে পালিয়ে যায়। বিআরটিএ’র তথ্যমতে, গাড়িটির মালিক কামরুন্নাহার শিউলি। তিনি নোয়াখালী-৪ আসনের এমপি একরামুল করীম চৌধুরীর স্ত্রী ও নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলার চেয়ারম্যান। সূত্র: যুগান্তর


জেড

Print