মিয়ানমারে আটক দুই রয়টার্স সাংবাদিকের আনুষ্ঠানিক বিচার শুরু

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
টাইম নিউজ বিডি,
০৯ জুলাই, ২০১৮ ২১:০০:০৭
#

'অভিযোগ আমলে নিয়ে মামলা বা বিচার কার্যক্রম শুরু করা যায় কি না' এই বিষয়ে ৬ মাসের প্রাথমিক শুনানির পর আটক রয়টার্সের দুই সাংবাদিকের বিরুদ্ধে দাপ্তরিক গোপনীয়তা ভঙ্গের অভিযোগ এনে মামলা বা বিচার কার্যক্রম আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু করার অনুমতি দিয়েছে মিয়ানমারের আদালত।


সোমবার ইয়ানগুনের জেলা বিচারক ইয়ে লিউইন আটক রয়টার্সের দুই সাংবাদিক ওয়া লোন (৩২) ও কিয়াও সোয়ে উ (২৮) বিরুদ্ধে এই আদেশ দেন।


পাশাপাশি দাফতরিক গোপনীয়তা ভঙ্গের ব্রিটিশ পুরনো উপনিবেশিক আইনে তাদের বিচার করারও অনুমতি দেয় আদালত। যে আইনে সর্বোচ্চ শাস্তি ১৪ বছরের কারাদণ্ড।


গত বছরের সেপ্টেম্বরের শুরুর দিকে রাখাইনের উত্তরাঞ্চলীয় গ্রাম ইনদিনে সেনাবাহিনী ও উগ্র বৌদ্ধ জাতীয়তাবাদীরা ১০ রোহিঙ্গাকে গুলি করে হত্যা করে। তাদের রাখা হয় গণকবরে। ঘটনার সরেজমিন অনুসন্ধানে নেমেছিলেন রয়টার্সের ওই দুই সাংবাদিক। অনুসন্ধানে গোপনীয়তা ভঙ্গ হয়েছে বলে অভিযোগ করে ডিসেম্বরে তাদের আটক করা হয়।


ডিসেম্বরে আটকের পর ইয়াঙ্গুনের একটি আদালতে গত জানুয়ারি থেকে সাংবাদিক -এর বিরুদ্ধে ওই মামলায় অভিযোগ গঠনের প্রাথমিক শুনানি চলছিল।


সর্বশেষ আজ সোমবার আদালত তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে বিচার কার্যক্রম শুরু করার অনুমতি দেয়। ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক আমলের আইনে দায়ের হওয়া মামলায় দন্ডিত হলে তাদের ১৪ বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড হতে পারে।


আদালতে রায়ের পর আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থা রয়টার্সের প্রধান স্টিফেন আডলের একটি বিবৃতি প্রদান করেন। যেখানে তিনি জানান,
মিয়ানমার আদালতের এই রায়ে আমরা খুবই হতাশ হলাম। কারণ অভিযোগটি সম্পূর্ন ভিক্তিহীন ছিল।


তিনি আরো বলেন, আমাদের প্রতিনিধিরা স্বাধীন এবং নিরপেক্ষভাবে তাদের অনুসন্ধান চালিয়ে যাচ্ছিল। রাষ্ট্রিয় আইন ভঙ্গ হয় এমন কোন কাজের সাথে তাদের সম্পৃক্ততা বা প্রমাণ নেই। তাদেরকে মুক্ত করার জন্য আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাবো।


জেড


 

Print