ডিএনসিসিরি ৫৩ স্থানে গতিরোধক ও জেব্রা ক্রসিং বসছে

টাইম ডেস্ক
টাইম নিউজ বিডি,
২৯ আগস্ট, ২০১৮ ১৪:২৪:১৬
#

শিক্ষার্থী ও পথচারীদের নিরাপদে সড়ক পারাপারের ব্যবস্থা করতে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) অর্ধশতাধিক এলাকায় গতিরোধক ও জেব্রা ক্রসিং বসানো হচ্ছে।


এ জন্য অগ্রাধিকার দেওয়া হচ্ছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, হাসপাতালের সামনের সড়কগুলোকে। এর পাশাপাশি সরকারি অফিস এবং বাজার এলাকায় নিরাপদ পারাপারের ব্যবস্থা করার পরিকল্পনা রয়েছে ডিএনসিসির। প্রয়োজনে এ সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে জানিয়েছে সংস্থাটি।


খিলক্ষেত এলাকায় গত ২৯ জুলাই বাসের জন্য অপেক্ষারত দুই শিক্ষার্থীকে চাপা দেয় জাবালে নূর পরিবহনের একটি বাস। নিহত দুই শিক্ষার্থী শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজের একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণিতে পড়ত।


এ ঘটনায় রাজধানীসহ বিভিন্ন জেলায় ছাত্র আন্দোলন ছড়িয়ে পড়ে। এরপরই জেব্রা ক্রসিং ও গতিরোধক বসানোর উদ্যোগ নেয় ডিএনসিসি।


সংস্থাটির প্রকৌশল বিভাগের কর্মকর্তারা জানান, কোরবানির ঈদের আগপর্যন্ত ২০টির মতো জায়গায় জেব্রা ক্রসিং ও গতিরোধক বসানো হয়েছে। ঈদের পর পুনরায় গতিরোধক ও পথচারীদের পারাপারের জন্য জেব্রা ক্রসিং তৈরির কাজ শুরু হবে।


জানা গেছে, ঈদের ছুটির আগপর্যন্ত উত্তরা, মিরপুর, গুলশান, মোহাম্মদপুরসহ ডিএনসিসির আওতাধীন এলাকার ৫৩টি জায়গা জেব্রা ক্রসিং ও গতিরোধক বসানোর জন্য নির্ধারণ করা হয়েছে। এ ছাড়া এ তালিকা প্রতি সপ্তাহেই হালনাগাদ করা হবে বলে ডিএনসিসির সংশ্লিষ্ট এক ব্যক্তি জানান।


এসব সড়কে জেব্রা ক্রসিং ও রাম্বল স্ট্রিপ (গাড়ির চালকদের সতর্ককারী ও গতি কমানোর জন্য একটানা বসানো ছোট ছোট গতিরোধক) বসানো হবে।


যেসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সামনে জেব্রা ক্রসিং দেওয়া হচ্ছে সেগুলো হলো আসাদ গেটের সেন্ট যোসেফ স্কুল অ্যান্ড কলেজ, মিরপুর রোডের ঢাকা রেসিডেনসিয়াল মডেল কলেজ, গজনবী রোডের মোহাম্মদপুর মডেল স্কুল, উত্তরার আগা খান স্কুল, মিরপুর টেকনিক্যাল মোড়ের শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মহিলা কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, গুলশানের মানারাত কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়, মনিপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজের মূল ভবনের সামনে ৬০ ফুট সড়ক, মিরপুরে অবস্থিত জার্মান টেকনিক্যাল বা ইউসেপ স্কুলের সামনে।


জেব্রা ক্রসিংয়ের পাশাপাশি রাম্বল স্ট্রিপ বসানো হবে এসওএস হারম্যান মেইনার স্কুলের সামনে, শহীদ পুলিশ স্মৃতি স্কুল অ্যান্ড কলেজ, ঢাকা কমার্স কলেজ, এয়ারফোর্স পকেট গেট, মাটিকাটা এমপি চেকপোস্টের সামনে।


ডিএনসিসির প্রকৌশল বিভাগ থেকে জানা যায়, সড়ক দুর্ঘটনা বন্ধ করতে ও নিরাপদে যাত্রী, পথচারীদের সড়ক পারাপারের জন্য এই কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে।


ডিএনসিসির আওতাধীন এলাকায় মূল সড়কের পাশে প্রয়োজনীয় সংখ্যক গতিরোধক বসানো হবে। ডিএনসিসির প্রকৌশল বিভাগ ঢাকা মহানগর পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের সঙ্গে আলাপ করে এসব জেব্রা ক্রসিং ও গতিরোধক বসাবে।


এ ছাড়া পুরোনো যেসব সড়কে জেব্রা ক্রসিংয়ে মার্কিংগুলো (সাদা দাগ) হালকা হয়ে গেছে, সেগুলো আবার ঠিক করে দেওয়া হবে।


সংস্থাটির পক্ষ থেকে জানানো হয়, যানজট ও ঝুঁকি এড়াতে ডিএনসিসিতে জেব্রা ক্রসিং ও গতিরোধক রাম্বল স্ট্রিপগুলো রাতের বেলায় তৈরি করা হবে। এএস

Print