সাফারি পার্কে ডোরাকাটা হলুদ বাঘিনীর সাদা শাবকের জন্ম

স্টাফ রিপোর্টার
টাইম নিউজ বিডি,
১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:৪৯:৪৬
#

প্রথমবারের মতো গাজীপুরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কে জন্ম নিয়েছে ডোরাকাটা সাদা রঙের বাঘের বাচ্চা। এখন সবার আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে এই বাঘের বাচ্চাটি।


বাংলাদেশে এটি জন্ম নেওয়া তৃতীয় সাদা বেঙ্গল টাইগারের বাচ্চা। আর সাফারি পার্কে এটিই প্রথম শ্বেতাঙ্গ বেঙ্গল টাইগার।


বাবা-মা ডোরাকাটা হলুদ রঙের হলেও এই বাচ্চা মেয়ে বাঘটি সাদা হয়েছে। তার সঙ্গে আরও ২টি বোন জন্ম নিয়েছে। সেগুলো অবশ্য বাবা-মায়ের রং পেয়েছে।


জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক মনিরুল এইচ খান বলেন, দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে আনা বাঘগুলোর পূর্বপুরুষ সাদা হয়ে থাকতে পারে। জিনগত কারণে বাবা-মা হলুদ রঙের হলেও এই বাচ্চা দুটো সাদা হয়েছে। 


অধ্যাপক মনিরুল আরও বলেন, মানুষের মতো বাঘেরও শ্বেত রোগ হয়। সে ক্ষেত্রে শ্বেত রোগী বাঘগুলো জন্ম থেকেই সাদা থাকে। এগুলোর গায়ে কোনো ডোরাকাটা দাগ থাকে না। এই বাচ্চা দুটো ডোরাকাটা দাগ থাকায় বোঝা যাচ্ছে, জিনগত কারণে সাদা হয়েছে। এই বাঘগুলোর চোখের মণি নীল রঙের হয়।


সাফারি পার্ক কর্তৃপক্ষ জানায়, গত ৮ আগস্ট সকালবেলা বেঙ্গল টাইগার পরিবারে ৩টি বাঘিনীর জন্ম হয়। নতুন শাবকগুলোরও নাম দেওয়া হয়নি। এই বাচ্চা বাঘগুলোর মায়ের এর আগেও তিনটি মেয়ে বাচ্চা হয়েছিল। নতুন শাবক নিয়ে সাফারি পার্কে এখন মোট বেঙ্গল টাইগারের সংখ্যা ১২টি। এর মধ্যে ৩টি পুরুষ।


মা বাঘিনীর কিউরেটর নুরুন্নবী মিন্টু জানান, শাবকরা মায়ের সঙ্গে সারাক্ষণ খুনসুটিতে ব্যস্ত থাকে, শাবকদের কখনও চোখের আড়াল হতে দেয় না মা বাঘিনীটি। তবে অচেনা কাউকে দেখলেই রেগে যায় মা বাঘিনী। আরও ১ বৎসর লোকচক্ষুর আড়ালেই রাখা হবে শাবকদের। তবে ৬ মাস পর্যন্ত শাবকরা মায়ের দুধ পান করবে, তারপর থেকে তাদের মাংস দেয়া হবে।  


বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম বলেন, আপাতত বাঘের সাদা বাচ্চাকে মায়ের সঙ্গে রাখা হবে। এরপর কর্তৃপক্ষ পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেবে। বর্তমানে মা ও তার শাবকরা সুস্থ রয়েছে।


এমবি    

Print