এশিয়া কাপে যে কারণে ফেভারিট পাকিস্তান

স্পোর্টস ডেস্ক
টাইম নিউজ বিডি,
১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ২২:৫৬:৩০
#

আরব আমিরাতের মরুভূমি এখন প্রচণ্ড 'ঝড়ের' অপেক্ষায়। আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হবে এশিয়া কাপ। ক্রিকেটের অন্যতম সেরা বিজ্ঞাপন ভারত-পাকিস্তানসহ এতে অংশ নেবে বাংলাদেশ, আফগানিস্তান এবং শ্রীলঙ্কার মতো শক্তিশালী দল। হংকংয়ের মতো নবাগত দলও খেলবে এবারের আসরে।


ধারণা করা হচ্ছে, এশিয়া কাপের ৩৪ বছরের ইতিহাসে এবার সবচেয়ে প্রতিযোগিতামূলক টুর্নামেন্ট দেখতে পারবেন দর্শকরা। কারণ, আসরের সেরা পাঁচ দল- ভারত, পাকিস্তান, আফগানিস্তান, শ্রীলঙ্কা এবং বাংলাদেশ শক্তিমত্তায় বেশ কাছাকাছি। তবে কাগজে কলমে পাকিস্তানকেই ফেভারিট মানছেন অনেকে ক্রিকেট বোদ্ধা।

সরফরাজ আহমেদের নেতৃত্বে গতবছর ভারতকে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জেতে দলটি। ওয়ানডের সেই ধারাবাহিকতা বেশ ভালোভাবেই ধরে রেখেছে সবুজ শিবির।

তবে তিনটি বিষয়ের এশিয়া কাপের অন্যতম দাবিদার পাকিস্তান।

প্রথমত, একথা অস্বীকার করার উপাই নেই যে, এশিয়া কাপের দলগুলোর মধ্যে পাকিস্তানের বোলিং আক্রমণ সবচেয়ে শক্তিশালী। তারা জানেন, ইউএই'র ফ্লাট উইকেটে কিভাবে ভালো বল করতে হয়। তরুণ এবং অভিজ্ঞদের দারুণ মিশ্রণ দলটিতে। পাকিস্তানের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জয়ের দুই নায়ক মোহাম্মদ আমীর এবং হাসান আলীই দেবেন বোলিংয়ে নেতৃত্ব। আর শাদাব খান এবং ফাহিম আশরাফের মতো অলরাউন্ডাররা বড় মঞ্চে ভালো করেন। যদি ব্যাটসম্যানরা তোদের ভূমিকা পালন করতে পারে তবে এই বোলিং আক্রমণ নিয়ে বড় স্বপ্ন দেখতেই পারে পাকিস্তান।

দ্বিতীয়ত, দুর্দান্ত টপ অর্ডার। দলটির সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স বিবেচনা কররে দেখা যায়, দলের সিংহভাগ রানই এসেছে ফখর জামান, ইমাম উল-ক এবং বাবর আজমদের ব্যাট থেকে। সম্প্রতি সীমিত ওভারে তাদের সাফল্যও দলটিকে আত্মবিশ্বাসী করবে। সবশেষ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৫-০ তে সিরিজ জয়ের পর ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়েছে। পাওয়ার প্লে'তে যুতসই ব্যাটসম্যান ফখর। আর বাবর আজম এবং শোয়েব মালিকরা মিডল অর্ডারে ভরসার প্রতীক। শেষ দিকে ব্যাট করার জন্য দলটির বেশ কিছু অলরাউন্ডার আছে।


তৃতীয়ত, হোম কন্ডিশন। এবছর এশিয়া কাপ আয়োজনের কথা ছিলো ভারতের। কিন্তু দেশটির সরকার বিসিসিআইকে সে অনুমতি দেয়নি। তাই এবারের আসরটি চলে গেছে নিরপেক্ষ ভেন্যু সংযুক্ত আরব আমিরাতে। আর এতে না চাইতেই সুবিধা পেয়ে গেছে পাকিস্তান। দেশটি থেকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট নির্বাসনে যাওয়ার পর থেকে ইউএই'কেই হোম ভেন্যু হিসেবে ব্যবহার করে আসছে তারা। এটি পাকিস্তানকে সরাসরি সুবিধা না দিলেও দুবাই, আবুধাবির কন্ডিশন তাদের চেয়ে আর কারোরই ভালো চেনা নয়।


এসএম

Print