সিঙ্গাপুরে সমকামিতা আইন বাতিল না করার আহবান খ্রিস্টান যাজকের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
টাইম নিউজ বিডি,
১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৮:৩৪:২০
#

বর্তমান পরিস্থিতিতে পরিবার বা সমাজ ব্যবস্থার ক্রমধারা বিকাশ টিকিয়ে রাখতে সংবিধানে সমকামিতা বিরোধী আইন (Section 377A) কোন ভাবেই বাতিল করা উচিত নয় বলে জানান সিঙ্গাপুরে খ্রিস্টানদের সর্বোচ্চ ধর্মগুরু আর্চবিশফ।


মঙ্গলবার রাতে 'the Roman Catholic Archdiocese of Singapore's' নামক খিস্ট্রানদের ওয়েবসাইটে সরকারকে উদ্দেশ্য করে লেখা এক চিঠিতে এই আহবান জানান আর্চবিশফ উইলিয়াম গোহ।


তিনি বলেন, 'আমি কোনভাবেই সমকামিতার বিরুদ্ধে ব্রিটিশ ৗপনিবেশিক আমল থেকে আসা এই আইনটি বাতিলের বিরোধীতা করতাম না, যদি এই আইন বাতিলে সমাকামীদের দ্বারা সংগঠিত সকল অপরাধ বৈধ না হতো'।


তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, সংসদে বিষয়টি পর্যালোচনার ক্ষেত্রে অবশ্যই দেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষের মতামতের দিকে নজর দিবে, যারা তাদের যুগ যুগ ধরে চলে আসা পারিবারিক ব্যবস্থাকে সমর্থন দিয়ে এসেছে এবং এই আইনটি এমনভাবে প্রতিষ্ঠা করা উচিত যেন ভবিষ্যতে কেউ সমকামিতাকে বৈধ করার বিষয়ে কোন দাবি তুলতে না পারে।


এটা এই জন্য কারণ, আইনটি মেনে নেওয়া বা গ্রহণ করলে সমাজে যুগ যুগ ধরে গড়ে উঠা পরিবারগুলোর ক্রমবিকাশ নষ্ট হয়ে যাবে এবং এটা শিশুদের বেড়ে উঠার ক্ষেত্রেও মনস্তাত্বিক প্রভাব ফেলবে। যার ফলাফল দীর্ঘমেয়াদি এবং অপরিবর্তনীয়।

এই মাসের প্রথমদিকে এই ৩৭৭ ধারা বাতিল এবং অবৈধ ঘোষণা করে সমকামিতাকে বৈধতা দেয় ভারতের আদালত। সেই রায়ের জের ধরে সিঙ্গাপুরেও সংবিধানে বর্ণিত ৩৭৭ ধারা নিয়ে বিতর্ক উঠে। যার কারণে সরকার এবং সংসদকে উদ্দেশ্য করে অনলাইনে এই পত্র লিখেন যাজক।


এই বিষয়ে সিঙ্গাপুরের আইনমন্ত্রী কে শানমুগান বলেন, সমকামিতা নিয়ে সংবিধানে বর্ণিত ৩৭৭ ধারা নিয়ে যে কোন সিদ্ধান্ত সংসদের বিষয়। আর সংসদ এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার সময় অবশ্যই সংগরিষ্ঠদের মতামত এবং স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলো বিবেচনায় রাখবে।


পত্রে যাজক সিঙ্গাপুরে অবস্থিত অন্যান্য ক্যাথলিক ধর্মগুরুদের আহবান জানিয়ে বলেন, সকল গির্জায় অবশ্যই এই বিষয়ে সচেতনতা গড়ে তুলতে হবে। দেশের একজন সুনাগরিক হিসেবে অবশ্যই সরকারের সিদ্ধান্তে আমাদের মতামত দেওয়ার অধিকার আছে।


তিনি বলেন, যেটা আমাদের পুরো সমাজ এবং পরিবার ব্যবস্থাকে ধ্বংস করে ফেলবে সেই ইস্যুতে আমরা কোনভাবেই চুপ থাকতে পারি না।


তিনি আরও বলেন, যারা সমকামী আমরা তাদের বিরুদ্ধে নয় কিন্তু তার মানে এই নয় যে সমকামিতার প্রতি সমর্থন দিয়ে যাবো। নৈতিকতার দিক থেকে কোনভাবেই একে সমর্থন করা যায় না।


উল্লেখ্য, সিঙ্গাপুরে সম্প্রতি এক গবেষণায় দেখা যায় প্রায় ৫৫ ভাগ মানুষ সমকামিতার পক্ষে। অর্থ্যাৎ প্রতি তিন জনের একজন সমকামিতাকে সমর্থন করে। যদিও ইপসোস (Ipsos) নামের এই অনলাইন জরিপটি এতো জনপ্রিয়তায় এখনো আসে নি।


জেড

Print