নতুন মজুরি কাঠামোর পর অনেক কারখানা বন্ধ হয়ে যেতে পারে

স্টাফ রিপোর্টার
টাইম নিউজ বিডি,
১৬ অক্টোবর, ২০১৮ ২২:১৭:৪৩
#

মজুরি বৃদ্ধির পর ২০১৪ সালে অনেক পোশাক কারখানা বন্ধ হয়ে যায় উল্লেখ করে বিজিএমইএ সভাপতি বলেছেন এবারও তেমন অবস্থা তৈরি হতে পারে। পোশাক শিল্পের নিম্নতম মজুরি ও বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরো বলেন, শিল্পের স্বার্থে মালিকরা নতুন মজুরি কাঠামো মেনে নিলেও কিছু শ্রমিক নেতা ও এনজিও বিভ্রান্তি ছড়িয়ে অস্থিতিশীলতা তৈরির পায়তারা করছে। 


সংবাদ সম্মেলনে নতুন মজুরী বাস্তবায়নের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে ক্রেতা, শ্রমিক, সরকার ও সংশ্লিষ্ট সকলকে একসাথে কাজ করার আহ্বান জানানো হয়। অভিযোগ করা হয়, ক্রেতাদের অসহযোগিতার কারণে কারখানা সংস্কার ও কর্মপরিবেশ উন্নয়নে বড় অঙ্কের বিনিয়োগ করলেও আন্তর্জাতিক বাজারে বাংলাদেশের পোশাক দর হারিয়েছে। এসময় চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দরে পণ্য ওঠানামার সক্ষমতা বৃদ্ধিতে উদ্যোগ গ্রহণ ও দেশের সকল বন্দর ২৪ ঘন্টা খোলা রাখার সিদ্ধান্তকে সরকারের সময়োগযোগী পদক্ষেপ হিসেবে উল্লেখ করা হয়।

বিজিএমইএ’র সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান বলেন, ‘আমরা অনেক প্রতিকূলতা ও ব্যবসার কষ্ট থাকা সত্ত্বেও নতুন মজুরি কাঠামো মেনে নিয়েছি। নতুন মজুরি কাঠামো প্রশংসিতও হয়েছে। কিন্তু কিছু মুষ্টিমেয় শ্রমিক নেতা ও এনজিও এ বিষয়ে প্রপাগাণ্ডা ছড়িয়েছে। এবং উসকানি দিয়ে এ শিল্পখাতকে অস্থিতিশীল করার পাঁয়তাড়া চালাচ্ছে। ২০১৪ সালে টিকতে না পেরে ১২০০ কারখানা বন্ধ হয়ে গেছে। আমাদের আশঙ্কা ভবিষ্যতে আরও অনেক কারখানা বন্ধ হয়ে যেতে পারে।’


এসএম

Print