‘আসামে বাঙালি খুনের নেপথ্যে কী এনআরসি?’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
টাইম নিউজ বিডি,
০২ নভেম্বর, ২০১৮ ২০:২৯:২০
#

সম্প্রতি আসাম রাজ্যের জাতীয় নাগরিক পঞ্জির (এনআরসি) তালিকার চূড়ান্ত খসড়া প্রকাশিত হয়। সেখানে অনেক বাঙালির নাম বাদ পড়ে যায়। সেই প্রসঙ্গই টেনে আনলেন মমতা। খবর এনডিটিভির


বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় আসামের তিনসুকিয়ায় পাঁচ বাঙালিকে গুলি করে হত্যার ঘটনার পর এক টুইটে এসব কথা বলেন মমতা। 


মমতা টুইটে লেখেন, ‘আসাম থেকে ভয়াবহ খবর পাওয়া যাচ্ছে। দুঃখ প্রকাশের ভাষা নেই। এই ঘটনা কি এনআরসি’র ফলশ্রুতিতে ঘটেছে? অপরাধীদের যত দ্রুত সম্ভব গ্রেফতার করতে হবে। হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে কলকাতায় মিছিল করবে তৃণমূল। মিছিল হবে শিলিগুড়িতেও।’


কয়েক আগে আসামে নাগরিক পঞ্জিকরণের চূড়ান্ত খসড়া তালিকা প্রকাশের পরও প্রতিবাদ করেছিলেন মমতা। তার মনে হয়েছিল নিজের দেশেই নাগরিকদের উদ্বাস্তু করে দিয়েছে মোদী  সরকার। তাঁর  প্রতিবাদ গিয়ে পৌঁছেছে দিল্লিতেও। পাল্টা তাকেই রাজনৈতিক আক্রমণের নিশানা করেছে বিজেপি। 


শুধু তাই নয় মমতার বিরুদ্ধে ভোট ব্যাঙ্কের রাজনীতি করার অভিযোগও এনেছেন বিজেপি নেতারা। তাছাড়া ডিসেম্বর থেকে রাজ্যে যে তিনটি রথযাত্র বিজেপি করছে তাতেও প্রথমসারিতে থাকবে এনআরসি প্রসঙ্গ। বিজেপির দাবি, আসামের মতো অনুপ্রবেশের সমস্যা কলকাতাতেও আছে। তাই এখানেও নাগরিক পুঞ্জিকরণ প্রয়োজন। তবে প্রস্তাবের বিরোধিতা করেছে তৃণমূল। 


পাঁচ বাঙালিকে গুলি করে হত্যার প্রতিবাদে রাজ্যের বাঙালি সংগঠনগুলোর ডাকে তিনসুকিয়ায় চলছে ১২ ঘণ্টার বন্‌ধ। আসাম বাঙালি ছাত্র যুব ফেডারেশন ও আরও কয়েকটি সংগঠনের ডাকে শুক্রবার সকাল থেকে তিনসুকিয়ায় স্বতঃস্ফূর্তভাবে চলছে বন্‌ধ। রাস্তায় চলছে হাতে গোনা যানবাহন।


পাঁচ বাঙালিকে হত্যার ঘটনায় ইউনাইটেড লিবারেশন ফ্রন্ট অফ আসাম (উলফা) কে দায়ী করছে স্থানীয় সংগঠনগুলো। এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, হামলাকারী সন্ত্রাসীরা উলফার পরেশ বরুয়া গ্রুপের।


এমআর

Print