ক্যালিফোর্নিয়ায় নাইটক্লাবে বন্দুক হামলায় নিহত ১২

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
টাইম নিউজ বিডি,
০৮ নভেম্বর, ২০১৮ ২১:১৮:১৩
#

যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ক্যালিফোর্নিয়ার একটি বারে এক বন্দুকধারী হামলায় একজন নিরাপত্তা কর্মীসহ ১২ জন নিহত এবং ৩০ জন আহত হয়েছেন।


স্থানীয় সময় বুধবার রাতে লস এঞ্জেলস থেকে প্রায় ৪০ মাইল দূরের থাউজ্যান্ড ওয়াকস শহরে অবস্থিত বর্ডারলাইন বার অ্যান্ড গ্রিল নামের একটি নাইটক্লাবে হামলায় এই হতাহতের ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে নিউজ ডট কম এইউ।


ক্লাবটিতে একটি কলেজ ইভেন্ট অনুষ্ঠিত হচ্ছিল বলে জানিয়েছে ফক্স নিউজ। এই হামলার ঘটনায় হতাহত ও ক্ষয়ক্ষতির সঠিক পরিমাণ এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হয়নি।


পুলিশের বরাত দিয়ে স্থানীয় গণমাধ্যম ‘লস এঞ্জেলস টাইমস’ জানিয়েছে, এই ঘটনায় কমপক্ষে ৩০ জন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। কিন্তু এতে কমপক্ষে ৬ জন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।


স্থানীয় গণমাধ্যমগুলোর খবরে বলা হয়েছে, কমপক্ষে একজন পুলিশ অফিসার আহত হয়েছেন। তাকে প্রথমে ঘটনস্থলেই প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয় এবং পরবর্তীতে তাকে হাসপাতালে নেয়া হয়।


দ্য টাইমসের খবরে একধিক গুলি ছোড়া এবং অনেক মানুষ গুলিবিদ্ধ হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। ঘটনাস্থলে উপস্থিত থাকা কর্মকর্তাদের মতে, গুলি ছোড়া শুরু হওয়ার পরপরই ভুক্তভোগীরা পাশের গ্যাস স্টেশনে ছুটে যায় চিকিৎসার জন্য।


প্রাথমিক প্রতিবেদন অনুসারে, স্থানীয় সময় বুধবার রাত ১১টা ২০ মিনিটের দিকে একজন একটি সেমি-অটোমেটিক বন্দুক দিয়ে গুলি ছোড়া শুরু করে।


এফবিআই ও বোম্ব স্কোয়াডসহ আইনপ্রয়োগকারী সংস্থা এবং জরুরি সেবাদানকারী ক্রু সদস্যরা দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে যায়।


লস এঞ্জেলসের ‘কেএবিসি-টিভি’র পোস্ট করা লাইভ ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, অস্ত্রসহ কর্মকর্তারা নাইটক্লাবের ভেতরে প্রবেশ করছে এবং আশেপাশে অসংখ্য পুলিশের গাড়ি। কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হওয়ার পর আবারও গোলাগুলি হয়।


একজন প্রত্যক্ষদর্শী এবিসি৭’কে বলেন, আমি আমার সৎ বাবার সঙ্গে কথা বলার জন্য ক্লাবটির সামনের দরজায় ছিলাম। সেখান থেকেই আমি গুলির শব্দ শুনি। তখন আমিসহ তিন-চারজন মাটিতে পড়ে যাই। নিরাপত্তা কর্মী মারা যান।


তিনি বলেন, বন্দুকধারীর হাতে একটা বড় হ্যান্ডগান ছিল। তার চোখে চশমা এবং পরনে একটি কালো জ্যাকেট ছিল।


আরেকজন প্রত্যক্ষদর্শী বলেন, বন্দুকধারী এই ব্যক্তি ভেতরে এসে মানুষকে দ্বিধান্বিত করতে প্রথমে ধোঁয়া ছোড়ে। এরপর ড্যান্সফ্লোরে গুলি ছোড়ে। তিনি অনেক তরুণ প্রাণ নিয়েছেন।


এই এলাকায় জনগণকে চলাচল করতে নিষেধ করেছে কর্তৃপক্ষ।


এমআর

Print