গোলাম রব্বানীর মনোনয়নপত্র গ্রহণ, এবার প্রস্তাবকারী গ্রেফতার

রংপুর করেসপন্ডেন্ট
টাইম নিউজ বিডি,
০৫ ডিসেম্বর, ২০১৮ ২২:১৯:১৭
#

হাইকোর্টের আপিল বিভাগের আদেশে অবেশেষে ২৩ রংপুর-৫ (মিঠাপুকুর) আসনে ২০ দলীয় জোট সমর্থিত বিএনপির ‘ধানের শীষ’ প্রতীকের প্রার্থী অধ্যাপক গোলাম রব্বানীর মনোনয়নপত্র গ্রহণ করেছে রিটার্নিং কর্মকর্তা ও রংপুর ডিসি এনামুল হাবীব।   


আজ (০৫ ডিসেম্বর) বুধবার দুপুর সোয়া ১২ টায় তার আইনজীবিরা মনোনয়নপত্র জমা দেন। এসময় কাচারি বাজার থেকে তার প্রস্তাবকারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।


গত ২৮ নভেম্বর মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিনে ৪ ঘণ্টা দাঁড় করিয়ে রেখে কোনো কারণ ছাড়াই রিটার্নিং কর্মকর্তা অপারগতা প্রকাশ করেছিলেন।  


অধ্যাপক গোলাম রব্বানীর আইনজীবী অ্যাডভোকেট বায়েজিদ ওসমানি জানান, হাইকোর্টের আপিল বিভাগের আদেশের কপির আলোকে প্রস্তাবকারী ওমর ফারুক ওয়াহেদী ও সমর্থনকারী আমিরুল ইসলাম এবং আমরা ৪ জন আইনজীবী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও ডিসি এনামুল হাবীবের কাছে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছি। তিনি মনোনয়নপত্র গ্রহণ করে তা নিয়ম অনুযায়ী যাছাই-বাছাই করে সিদ্ধান্ত গ্রহণের কথা জানিয়েছেন।


আইনজীবী আরও জানান, মনোনয়ন দাখিলের শেষ দিনে ২৮ নভেম্বর আমাদের ৪ ঘন্টা রিটার্নিং কর্মকর্তার অফিসের সামনে দাঁড়িয়ে রেখে সন্ধ্যায় উপরের নির্দেশে মনোনয়নপত্র গ্রহণ করতে অপারগতা করেছিলেন। এই বিষয়ে আমরা হাইকোর্টে রিট আবেদন করেছিলাম। হাইকোর্টের আমাদের মনোনয়ন গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছিল। রাষ্ট্রপক্ষের আপিলের প্রেক্ষিতে আজ(বুধবার) প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে আপিল বিভাগের আদেশের পর রিটার্নিং কর্মকর্তুা গ্রহন করেছেন। এখন মনোনয়নপত্র যাছাই-বাছাই প্রক্রিয়ায় যেন কোনোভাবেই কোনো হস্তক্ষেপ করা না হয়, সেটি দাবি আমাদের।


মনোনয়ন জমা দেয়ার সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- রংপুর আইনজীবি সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট আব্দুল কাইয়ুম মন্ডল, জাতীয়তাবাদী আইনজীবি ফোরামের নেতা অ্যাডভোকেট আফতাব উদ্দিন।


এদিকে ডিসি ও রিটার্নিং কর্মকর্তা এনামুল হাবীব জানান, হাইকোর্টের আপিল বিভাগের রায়ের আলোকে রংপুর-৫ (মিঠাপুকুর) আসনে গোলাম রব্বানীর মনোনয়নপত্র গ্রহণ করা হয়েছে। আইন অনুযায়ী যাচাই-বাছাই প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হবে।


এদিকে মনোনয়নপত্র জমা দিয়ে যাওয়ার সময় কাচারী বাজার থেকে কোর্টের দিকে যাওয়ার পথে অধ্যাপক গোলাম রব্বানীর প্রস্তাবকারী ওমর ফারুক ওয়াহেদীকে গ্রেফতার করে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ।


তাকে গ্রেফতার করার নিন্দা জানিয়ে তাৎক্ষণিক এক প্রেস ব্রিফিংয়ে আইনজীবি বায়েজিদ ওসমানী বলেন, একবার মনোনয়নপত্র গ্রহণ না করে আরেক প্রস্তাবকারীকে গ্রেফতার নির্বাচন কমিশন প্রমাণ করল যে তারা সরকারের আজ্ঞাবহ। তিনি অবিলম্বে প্রস্তাবকারী ওমর ফারুককে মুক্তির দাবি জানান।


রংপুর কোতয়ালী থানার ওসি তদন্ত মোখতারুল আলম জানান, গ্রেফতারকৃত জামায়াত নেতা ওমর ফারুক ওয়াহেদীর বিরুদ্ধে একাধিক নাশকতার মামলা আছে। তিনি নাশকতার মামলার আসামি। সে কারণেই তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।


মনোনয়নপত্র গ্রহণ না করায় গত ৩০ ডিসেম্বর রংপুর-৫ (মিঠাপুকুর) আসনে বিএনপি মনোনীতপ্রার্থী জামায়াতে ইসলামীর রংপুর জেলার সাংগঠনিক আমির গোলাম রব্বানীর মনোনয়নপত্র দ্রুত জমা নেয়ার জন্য রংপুরের রিটার্নিং কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেন হাইকোট। বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেন। পরে এই আদেশ স্থগিত চেয়ে আপিল বিভাগে আবেদন করে রাষ্ট্রপক্ষ।


আজ (বুধবার) মনোনয়নপত্র জমা নিতে হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদন নিষ্পত্তি করে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন আপিল বেঞ্চ আদেশে রংপুর-৫ (মিঠাপুকুর) আসনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী জামায়াতে ইসলামীর রংপুর জেলার সাংগঠনিক আমির গোলাম রব্বানীর মনোনয়নপত্র ২৪ ঘণ্টার মধ্যে জমা নেয়ার নির্দেশ দিয়ে আইন অনুযায়ী গোলাম রব্বানীর মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়েরও নির্দেশ দেয়া দেন।


আদালতে গোলাম রব্বানীর পক্ষে শুনানি করেন- অ্যাডভোকেট এ জে মোহাম্মদ আলী। তাকে সহযোগিতা করেন ব্যারিস্টার ইমরান এ সিদ্দিক ও অ্যাডভোকেট শিশির মনির। অপরপক্ষে ছিলেন- অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।


গোলাম রব্বানীর আইনজীবী বায়েজিদ ওসমানী জানান, ২৮ নভেম্বর দুপুর ২টা ৫০ মিনিটে আইনজীবী প্রয়োজনীয় সকল কাগজপত্রসহ প্রার্থীর পক্ষে মনোনয়নপত্র জমা দিতে রিটার্নিং কর্মকর্তার নির্ধারিত কার্যালয়ে যান। দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষায় থাকার পরও তাকে রিটার্নিং কর্মকর্তার কক্ষে ঢুকতে দেয়া হয়নি।


বিভিন্ন বিষয়ে তাকে হয়রানি শেষে মনোনয়নপত্র জমা নিতে অপারগতা জানান রিটার্নিং কর্মকর্তা। রিটার্নিং কর্মকর্তা মনোনয়নপত্র গ্রহণ না করায় প্রতিকার চেয়ে গত শনিবার নির্বাচন কমিশনে আবেদন করা হয়। নির্বাচন কমিশন থেকে কোনো সুরাহা না পেয়ে হাইকোর্টে রিট করেন গোলাম রব্বানী।


এমবি   

Print