বাঁচার আকুতি নিয়ে আবেগঘন স্ট্যাটাস নোবিপ্রবির ছাত্র মাহফুজের

নোবিপ্রবি প্রতিনিধি
টাইম নিউজ বিডি,
০৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১৭:৪৮:৫৩
#

বন্ধুরা যখন চাকুরী করে উন্নত জীবন যাপন করছেন সেখানে ক্যান্সারে অাক্রান্ত হয়ে হাসপাতালের বেডে মৃত্যর প্রহর গুনছেন নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (নোবিপ্রবি) ফুড টেকনোলোজি এন্ড নিউট্রিশন সায়েন্স বিভাগের ৭ম ব্যাচের মেধাবী ছাত্র মাহফুজ জনি।


তাকে সুস্থ জীবনে ফিরে অানতে নিঃস্ব তার পরিবার।তাই তাকে বাঁচানোর জন্য এই মুহূর্তে বড় অংকের অার্থিক সাহায্যের প্রয়োজন।গত ১ বছর যাবত তিনি দুরারোগ্য ক্যান্সারে অাক্রান্ত।


দীর্ঘদিন বাংলাদেশে চিকিৎসা নেওয়ার ফলেও কোন সুস্থতার খোঁজ না মিলায় চলে যান ভারতে। সেখানে অনেকদিন থাকার পরেও তার অবস্থার কোন উন্নতি হয়নি। প্রতিটি মুহূর্তে গুনছেন মৃত্যুর প্রহর।


তার এক বন্ধুর কাছ থেকে জানা যায় কষ্টের যন্ত্রণায় নিরুপায় হয়ে তিনি অাত্মহত্যা করতে চাচ্ছেন। তাই অারো কয়েকটি মুহূর্ত বেঁচে থাকার জন্য তাকে হাসপাতালেই থাকতে হবে এই জন্য প্রয়োজন অনেক টাকা।


মাহফুজ জনির ফেসবুক স্ট্যাটাস থেকে-


"গিয়েছিলাম ভেলরে সিএমসি হাসপাতালে। ওখানে গিয়ে যেটা বুঝলাম সেটা হচ্ছে আমাকে বাংলাদেশের ডক্টররা প্রপার ইনফো দেয় নি। দেয় নি প্রপার গাইড লাইডলাইন।


বাবাকে সাথে নিয়ে গেছিলাম।দুর্ভাগ্য উনি আমার কষ্ট দেখে নিজেই স্ট্রোক করে বসলেন।


সমস্যাটা হলো ভায়েল অবস্ট্রাকশন। ক্ষুদ্রান্তে প্রচুর পানি জমছে, ফ্লুইড আর এন্টিবায়োটিক। আর এরপর কোলনে আগের ক্যান্সার থেকে হয়ত কিছু টিউমার এসে পায়খানার রাস্তাটা ব্লক করে দিচ্ছে। ডাক্তারগন একটা বা দুইটা টিউমারের অপারেশন করতে পারেন, একাধিক করতে পারেন না। তাই উনারা 'না' করে দিলো। চলেও এলাম দেশে।


জিজ্ঞেস করলাম স্যার কতদিন বাঁচব? ১ মাস ?
বললঃ "Difficult To Say"


রাস্তা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় আজ অনেক দিন কিছু খাই না, পানি আরেকটু জুস ছাড়া । গ্যাসে ফুলে যাচ্ছে পেট। অবর্ননীয় কষ্ট । ক্যান্সার স্টেজ ও আগাচ্ছে। পিজিতে ভর্তি হতে চাচ্ছি সাফারিং কমানোর জন্যে আর যদি সম্ভব হয় একটু ভাল চিকিৎসার জন্যে। হাতের সব টাকা শেষ, আর ক্যান্সার শেষ স্টেজে ডায়াগনস্টিক, টেস্ট, সার্জারীর সহ সব ক্ষেত্রেই টাকা বেশি লাগে, তাই তোদের সাথে শেয়ার করলাম ব্যাপারটা।


সবার চাকরি পাওয়ার খবর দারুন লাগছে। সবার জন্য দোয়া রইল। ছড়িয়ে ছিটিয়ে যা পুরো বাংলাদেশে।
আমার স্বপ্নটা বা নাই বা পূরণ হলো"।


তাই নোবিপ্রবির সকল বন্ধু-বান্ধব,সিনিয়র-জুনিয়র সবার কাছে সাহায্য চেয়েছেন।
তাকে সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা-


বিকাশঃ
01757344626 (মেহেদী, নবম ব্যাচ)
01798502399 (রিমন, নবম ব্যাচ)


রকেটঃ 017128662447 (নেশন, নবম ব্যাচ)


জান্নাত/জেড


 


 

Print