লিপস্টিকের প্রলোভন দেখিয়ে ঘরে নেয়া হয় দুই শিশুকে

স্টাফ রিপোর্টার
টাইম নিউজ বিডি,
০৯ জানুয়ারি, ২০১৯ ১৮:৪০:৩৫
#

রাজধানীর ডেমরায় দুই শিশুকে লিপস্টিক দিয়ে সাজানোর কথা বলে ঘরে নিয়ে যাওয়া হয় তারপর ধর্ষণচেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে তাদেরকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয় বলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করে আসামিরা।


আজ বুধবার বেলা ১১টায় ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলন ওয়ারি জোনের উপকমিশনার এসব তথ্য জানান।


গ্রেফতারকৃত আসামিরা হলেন গোলাম মোস্তফা ও তার চাচাতো ভাই আজিজুল।


সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, দুই শিশুকে হত্যায় মূল অভিযুক্ত গোলাম মোস্তফা ও তার চাচাতো ভাই আজিজুলকে গ্রেফতার করা হয়েছে। লিপস্টিক দিয়ে সাজানোর কথা বলে প্রথমে তাদেরকে বাসায় নিয়ে যাওয়া হয়। তার আগে মোস্তফা ও আজিজুল ইয়াবা সেবন করে এবং ধর্ষণের পরিবেশ তৈরির জন্য ক্যাসেট প্লেয়ার চালিয়ে দেয়।


এরপর ধর্ষণের চেষ্টা করতে গেলে ফারিয়া আক্তার দোলা চিৎকার শুরু করে। তাকে প্রথমে গামছা পেচিয়ে শ্বাসরোধে তাকে হত্যা করা হয়। এ ঘটনা নুসরাত দেখে ফেললে তাকেও শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়। পরে লাশ খাটের নিচে রেখে আজিজুল পালিয়ে যায়।


পরে মোস্তফার স্ত্রী বাসায় ফিরলে ঘরের মধ্যে শিশুদের জুতা দেখতে পান। এ সময় মোস্তফা অস্বাভাবিক আচরণ করতে থাকে। তখন স্ত্রীর কাছে দুই শিশুকে হত্যা করে লাশ খাটের নিচে লুকিয়ে রাখার কথা স্বীকার করে মোস্তফা।


প্রসঙ্গত, গত সোমবার রাত পৌনে ১০টার দিকে রাজধানীর ডেমরার কোনাপাড়ার একটি কক্ষের খাটের নিচ থেকে দুই শিশুর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত দুই শিশুর নাম নুসরাত (৪) ও ফারিয়া আক্তার দোলা (৫)। শিশু দুটি ওই এলাকায় তাদের নিজ পরিবারের সঙ্গেই থাকতো। নুসরাতের বাবার নাম পলাশ ও দোলার বাবার নাম ফরিদুল।


ডেমরা থানার কোনাপাড়া পুলিশ ফাঁড়ির সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) আবু হায়াত জানান, ডেমরার শাহজালাল রোডের রুস্তম আলীর সাত তলা ভবন ‘নাসিমা ভিলা’র নিচ তলার একটি কক্ষ থেকে দুই শিশুর মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ওই বাসার পাশেই শিশু দুটির বাসা। তারা সকালে এক সঙ্গে খেলতে বের হয়। এরপর থেকেই নিখোঁজ ছিল শিশু দুটি।


জেড

Print