বাজেটে অনলাইন ব্যবসায় সুবিধা চায় ‘ই-ক্যাব’

স্টাফ রিপোর্টার
টাইম নিউজ বিডি,
১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ২০:৩৪:২৮
#

জাতীয় ডিজিটাল কমার্স নীতিমালা-২০১৮ কার্যকরে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় প্রকাশিত গেজেট দেশের ব্যবসায়ীরা ডিজিটাল রূপান্তরকে আরও একধাপ এগিয়ে নেওয়ার পাশাপাশি ই-কমার্স শিল্প প্রতিষ্ঠায় মাইলফলক বলে মূল্যায়ন করেছে ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ই- ক্যাব)।


অনলাইন নির্ভর ব্যবসায় কার্যক্রমকে ই-কমার্স হিসাবে বিবেচনা করে সংশ্লিষ্ট ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে কর ব্যবস্থা অব্যাহত রাখা এবং আয়কর প্রদানের ক্ষেত্রে ন্যূনতম ০.১ শতাংশ করার প্রস্তাব করেছেন তারা।


সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবে ‘গেজেট পর্যালোচনাসহ ই-কমার্স খাতের জন্য বাজেট প্রস্তাবনা’ শীর্ষক এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তারা।


সংবাদ সম্মেলনে ই-ক্যাব সভাপতি ও অভিনেত্রী শমী কায়সার বলেন, ‘ই-কমার্স কে জনপ্রিয় করার স্বার্থে সরকার আগামী বাজেটেও যেন কর অবকাশ সুবিধা অব্যাহত রাখেন। এক্ষেত্রে জনগন যেন অনলাইনমুখী হতে পারেন এবং অনলাইনে কেনাকাটা স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন। সেজন্য বাস্তবে দোকান থাকলেও কোনো প্রতিষ্ঠানের যদি ওয়েবসাইটের মাধ্যমে অনলাইনে পণ্য বিক্রি করে থাকে তবে তাদেরকেও যেন কর অবকাশ সুবিধা অধীনে নিয়ে আসা হয় ‘


গেজেট আকারে প্রকাশিত ই কমার্স নীতিমালা ২০১৮ দেশীয় উদ্যোক্তাদের সুরক্ষা কবচ উল্লেখ করে শমী কায়সার আরও বলেন, ‘গেজেটে বাংলাদেশী কোম্পানি ও  বিদেশি কোম্পানি সমতাভিত্তিক মালিকানার ব্যবসায় বিদেশি বিনিয়োগ নির্দেশনা রয়েছে। এটি কর‌লে দেশের অন্যান্য উচ্চতায় নিয়ে যাবে।’


সংবাদ সম্মেলনে ই-ক্যাব এর সাধারণ সম্পাদক আব্দুল ওয়াহেদ তমাল বাজেটর প্রস্তাবনা তুলে ধরেন।


তাদের প্রস্তাবনা গুলো হল: ই-কমার্স এর সার্বিক দিক বিবেচনা করে ই কমার্স ডেলিভারি সার্ভিস, পেমেন্ট সার্ভিস, ক্রস বর্ডার ই-কমার্স, উদ্যোক্তা প্রশিক্ষণ, জনসচেতনতা, গ্রাম পর্যায়ে ই-কমার্স সেবা পৌঁছে দেয়া, ভোক্তা অধিকার, পণ্যের মান ও প্রতিযোগিতামূলক দাম নিয়ন্ত্রণ, অনলাইন ও ওয়েব সুরক্ষা করতে হ‌বে।


সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন ই-ক্যাব এর পরিচালক নাসিমা আক্তার নিশা, মোহাম্মদ শাহাবুদ্দিন, অর্থ সম্পাদক আব্দুল হক প্রমুখ।


এসএম

Print