লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে প্রসূতির মৃত্যু

লালমনিরহাট করেসপন্ডেন্ট
টাইম নিউজ বিডি,
১৫ মার্চ, ২০১৯ ১৬:৪৫:৪৯
#

লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রোজিনা বেগম (২০) নামে এক প্রসূতি মায়ের মৃত্যুর ঘটনায় ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।


বৃহস্পতিবার বিকেলে ঘটনার প্রকৃত কারন অনুসন্ধানে এ তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। এর আগে দুপুরে গাইনী ও অবশ ওয়ার্ডে ওই প্রসূতির মৃত্য হয়।


মৃত প্রসূতি রোজিনা বেগম কালীগঞ্জ উপজেলার কাশিরাম গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের স্ত্রী।


রোজিনার পরিবার ও হাসপাতাল সুত্রে জানা গেছে, প্রসব বেদনা নিয়ে গত মঙ্গলবার সকাল ১০ টার দিকে লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে গাইনী ও অবশ ওয়ার্ডে ভর্তি হন রোজিনা বেগম। ওই দিন দুপুরে লালমনিরহাট সদর হাসপাতালের সিনিয়ার কনসালটেন্ট ডা. মাহমুদা বেগম অস্ত্রপাচার (সিজার) করে সাড়ে ৪ কেজি ওজনের এক কন্যা শিশুর জন্ম হয়। ওই বেডে দুই দিন চিকিৎসাধিন থাকার পর বৃহস্পতিবার দুপুর ১২ টার দিকে রক্তশুন্যতায় প্রসূতি রোজিনার মৃত্যু হয়। রোজিনার মৃত্যু জন্য চিকিৎসকের অবহেলাকে দায়ি করেন মৃতের পরিবার।


চিকিৎসকের অবহেলায় প্রসূতির মৃত্যুর খবরে স্বজনরা হাসপাতাল চত্ত্বরে বিক্ষোভ করলে বিচারের আশ্বাস দিয়ে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। সদর হাসপাতালের সার্জারী বিভাগের প্রধান সিনিয়ার কনসালটেন্ট ডা. আব্দুল হাদিকে প্রধান করে এই কমিটিকে আগামী তিন কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত রিপোর্ট জমা দিতে বলা হয়েছে।


রোজিনার স্বামী আব্দুর রাজ্জাক জানান, চিকিৎসকের অবহেলার কারনেই তার স্ত্রীর মৃত্যু হয়েছে। তার স্ত্রীর সিজার করার পরে সিনিয়ার কনসালটেন্ট ডা. মাহমুদা বেগমসহ কোনো চিকিৎসক তার স্ত্রীর নিবির পর্যবেক্ষণ ও খোঁজ খবর নেয়নি। মুলত চিকিৎসকের অবহেলার কারনেই তার স্ত্রী মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িতদের দৃষ্ঠান্তমুলক শাস্তি দাবি করেন তিনি।


লালমনিরহাট সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. গোলাম মোহাম্মদ জানান, সিজারিয়ান প্রসুতি মায়ের মৃত্যু কারণ অনুসন্ধানে তিন সদস্যের কমিটি করে দেয়া হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদন পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।


লালমনিরহাট সিভিল সার্জন ডা. আবুল কাশেম জানান, মৃত্যুর হার কমাতে প্রতিনিয়ত কাজ করছে স্বাস্থ্য বিভাগ। তবে চিকিৎসকের অবহেলায় চিকিৎসাধিন প্রসূতির মৃত্যুর বিষয়টি তার জানা নেই। তবে খোঁজ নিয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান তিনি।


নুরনবী সরকার/এসএম

Print