লাইভ সম্প্রচার নিয়ন্ত্রণে আনেছে ফেসবুক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
টাইম নিউজ বিডি,
৩১ মার্চ, ২০১৯ ১৪:২৩:২৮
#

নিউ জিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে হামলার সরাসরি সম্প্রচারের পর এই সেবাটি নিয়ন্ত্রণে আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ফেসবুক। সংস্থাটির প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা শেরিল স্যান্ডবার্গ বলেন, তারা অবশ্যই আরও কিছু করবেন।


১৫ মার্চ (শুক্রবার) ২৮ বছর বয়সী অস্ট্রেলীয় নাগরিক ব্রেন্টন ট্যারান্ট নামের সন্দেহভাজন হামলাকারীর লক্ষ্যবস্তু হয় নিউ জিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদ। শহরের হাগলি পার্কমুখী সড়ক ডিনস এভিনিউয়ের আল নূর মসজিদসহ লিনউডের আরেকটি মসজিদে তার তাণ্ডবের বলি হয় অর্ধশত মানুষ। ব্রেন্টন তার হামলাটি ফেসবুকে লাইভ স্ট্রিমিং করে। স্বয়ংক্রিয় বন্দুক হাতে হামলাকারীর এগিয়ে যাওয়া,মসজিদের প্রবেশকক্ষ থেকে বিভিন্ন কক্ষে নির্বিচারি গুলি বর্ষণ আর রক্তাক্ত নৃশংস পরিস্থিতির ভিডিও মুহূর্তেই ছড়িয়ে পড়ে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে। ব্রেন্টনের মধ্যে শ্বেতাঙ্গ আধিপত্যবাদী প্রবণতাও পাওয়া গেছে।


শেরিল স্যান্ডবার্গ এক ব্লগ পোস্টে বলেন, কমিউনিটি স্ট্যান্ডার্ড বা কমিউনিটির নীতিমালার ওপর ভিত্তি করে কে লাইভ স্ট্রিমিং করতে পারবে, তা নিয়ে বিধিনিষেধের বিষয়টি ঠিক করা হচ্ছে। স্যান্ডবার্গ বলেন, নিউজিল্যান্ডের সহিংস ঘটনাটি মূলত মানুষের বেশি শেয়ার করা। এর সম্পাদনা করা সংস্করণের কারণে ফেসবুকের সিস্টেমের জন্য ধরা কঠিন হয়ে যায়


ফেসবুকের নীতিমালা অনুযায়ী, তাদের প্ল্যাটফর্মে সন্ত্রাসী কার্যক্রম সমর্থন করা হয় না। তবে ফেসবুক প্ল্যাটফর্মে ঘৃণিত বক্তব্য ঠেকানোর বিষয়ে তাদের হিমশিম খেতে হচ্ছে। এর আগে ফেসবুকের লাইভ স্ট্রিম ফিচার ব্যবহার করে আত্মহত্যা, খুন ও সহিংসতা ছড়ানোর মতো কাজ করা হয়েছে।


ক্রাইস্টচার্চ মসজিদে হামলার ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাপের মুখে পড়ে ফেসবুক। গত ২৭ মার্চ নিজেদের প্ল্যাটফর্মে ‘শ্বেতাঙ্গ জাতীয়তাবাদী’ পোস্টনিষিদ্ধ করার ঘোষণা দেয়কোম্পানিটি। এক ব্লগ পোস্টে ফেসবুকের পক্ষ থেকে বলা হয়, শ্বেতাঙ্গ জাতীয়তাবাদ বা শ্বেতাঙ্গ বিচ্ছিন্নতাবাদের প্রশংসা,সমর্থন এবং এর প্রতিনিধিত্ব করা ফেসবুকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। আগামী সপ্তাহ থেকে আর ফেসবুক ও ইনস্টগ্রামে এ ধরনের কোনও কন্টেন্ট ছড়ানোর সুযোগ থাকবে না। তবে ওই ঘোষণা দেওয়ার সময় ক্রাইস্টচার্চ হামলার কথা উল্লেখ করেনি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমটি।


জেড

Print