নুসরাতের হত্যাচেষ্টাকারীদের বিচার দাবিতে মানববন্ধন

স্টাফ রিপোর্টার
টাইম নিউজ বিডি,
০৯ এপ্রিল, ২০১৯ ১৮:৪৯:৪২
#

ফেনী সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদরাসা ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যাচেষ্টা কারীদের কঠোর শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছে ‘কর্মজীবী নারী’ নামের একটি সামাজিক সংগঠন।


মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধনটি অনুষ্ঠিত হয়। 


মানববন্ধনে ফেনী-১ আসনের সাংসদ ও সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা শিরিন আখতার বলেন, গতকাল নুসরাত জাহান রাফিকে দেখতে গেলে তার মা ও ভাই আমাকে জানায় দোষীদের কঠোর শাস্তি চেয়েছে রাফি। রাফি বলেছে আমার যা হয় হোক কিন্তু আমার এ অবস্থার জন্য যারা দায়ী তা‌দের যেন বিচার হয়।


দোষীদের কঠোর শাস্তির দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, যারা এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত তাদেরকে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। যাতে করে আর কেউ এ ধরনের কাজ করতে সাহস না পায়। 


তিনি আরও বলেন, দোষীদের শাস্তি দেয়ার পাশাপাশি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোকেও সতর্ক করতে হবে। বলতে হবে যদি কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এরকম ঘটনা ঘটে তবে প্রতিষ্ঠানের সব সরকারি সাহায্য ও এমপিওভুক্তি বাতিল করা হবে। তবে যদি আমাদের মানসিকতার পরিবর্তন হয়।


এসময় তিনি মানুষের মধ্যে সচেতনতা বাড়াতে হবে সরকারকে বিভিন্ন ধরনের কর্মসূচি হাতে নেয়ার আহ্বান জানান।


মানববন্ধনে সংগঠনটির সহ-সভাপতি উম্মে হাসান ঝলমল, নির্বাহী পরিচালক রোকিয়া রফিক, শ্রমিক নেত্রী শাহিনা আক্তার পারভীন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। 


উল্লেখ্য: গতশনিবার সকাল ৯টার দিকে নুসরাত জাহান রাফি আলিম পর্যায়ের আরবি প্রথমপত্র পরীক্ষা দিতে সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদরাসা কেন্দ্রে যায়। এরপর কৌশলে তাকে পাশের ভবনের ছাদে ডেকে নেওয়া হয়। সেখানে বোরকা পড়া ৪/৫ ব্যক্তি নুসরাতের শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। এতে তার শরীরের ৮৫ শতাংশ পুড়ে যায়। পরে তাকে উদ্ধার করে স্বজনরা প্রথমে সোনাগাজী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে ফেনী সদর হাসপাতালে পাঠান। সেখানকার চিকিৎসকদের পরামর্শে রাফিকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে আনা হয়। বর্তমানে তাকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছে।


ভুক্তভোগী মাদরাসা ছাত্রী সোনাগাজী পৌরসভার উত্তর চরছান্দিয়া গ্রামের মাওলানা একেএম মানিকের মেয়ে।


অভিযোগ আছে, সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদরাসার অধ্যক্ষ সিরাজউদ্দৌলা এর আগে ওই ছাত্রীকে যৌন নিপীড়ন করে। এ কারণে গত ২৭ মার্চ অধ্যক্ষকে আটক করে পুলিশ। এ ঘটনায় তার মা শিরিন আক্তার বাদী হয়ে সোনাগাজী থানায় মামলা করেন। ওই মামলায় অধ্যক্ষ সিরাজউদ্দৌলা বর্তমানে ফেনী কারাগারে আছেন।


এসএম

Print