‘বিদেশি চ্যানেলে বিজ্ঞাপন প্রচার করলে লাইসেন্স বাতিল’

স্টাফ রিপোর্টার
টাইম নিউজ বিডি,
১০ এপ্রিল, ২০১৯ ১৮:৪৮:৫৫
#

বিদেশি চ্যানেলে দেশি বিজ্ঞাপন প্রচার করে আইন লঙ্ঘন করলে ক্যাবল অপারেটরদের লাইসেন্স বাতিলসহ আর্থিক জরিমানা করা হবে।


একই সঙ্গে বিদেশি মডেল দিয়ে বিজ্ঞাপন নির্মাণের ক্ষেত্রেও বিধিনিষেধ আনা হবে বলে জানান তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।


বুধবার সচিবালয়ে সম্মেলন কক্ষে টেলিভিশন মালিকদের সংগঠন অ্যাটকোর নেতাদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা জানান।


অ্যাটকো নেতারা এসময় এক বছরের সময় বেঁধে দিয়ে টিভি চ্যানেলগুলো ডিজিটালাইজেশনের আওতায় আনতে ব্যবস্থা নেয়ারও আহ্বান জানান।


বিদেশি চ্যানেল প্রদর্শনের সময় বিজ্ঞাপন প্রচার নিষিদ্ধ রেখে ২০০৬ সালে ‘ক্যাবল টেলিভিশন নেটওয়ার্ক আইন’ করে সরকার।


নিষিদ্ধ হওয়ার পরও ১৩ বছর ধরে তা মানা হচ্ছিল না। দেশের স্বার্থকে জলাঞ্জলি দিয়ে এ অপকর্ম করে আসছিল একটি চক্র। ফলে দেশের টেলিভিশন চ্যানেলগুলো অর্থিক ক্ষতির মুখোমুখি হওয়ার পাশাপাশি পাচার হচ্ছিলো মোটা অংকের অর্থ।


টিভি চ্যানেলগুলোর ক্রমাগত আপত্তির মুখে অবশেষে নড়েচড়ে বসে কর্তৃপক্ষ। শুরু হয় আইনের বাস্তবায়ন।
চলতি এপ্রিলের শুরুতে তথ্য মন্ত্রণালয় দুইটি পরিবেশক (ডিস্ট্রিবিউটর) সংস্থা ন্যাশনওয়াইড মিডিয়া লিমিটেড এবং জাদু ভিশন লিমিটেডকে কারণ দর্শানোর নোটিশ পাঠায়।


বুধবারের বৈঠকে বিজ্ঞাপন বন্ধে আবারও হুঁশিয়ারি দিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিদেশি চ্যানেলে বিজ্ঞাপন প্রচারে নিষেধাজ্ঞা বাস্তবায়নে সরকার কঠোর হয়েছে। আইন অমান্যকারীদের লাইসেন্স বাতিল, দু’বছরের কারাদণ্ড বা অর্থদণ্ড কিংবা উভয়দণ্ডসহ কঠোর আইনের আওতায় আনা হবে।


তিনি আরও বলেন, অ্যাটকোর প্রস্তাব অনুযায়ী, আগামীতে প্রতিটি দেশি চ্যানেলকে ডিজিটালাইজেশনের আওতায় আনা হবে।


বাংলাদেশের বেসরকারি টেলিভিশন শিল্পের স্বার্থ রক্ষার্থে বৈঠকের শুরুতে বেশকিছু প্রস্তাব তুলে ধরেন অ্যাটকো নেতারা।


 


এএস

Print