ইয়াবা দিয়ে ফাঁসানোর সময় আটক ৫ পুলিশ সদস্য

জেলা প্রতিনিধি
টাইম নিউজ বিডি,
২৯ এপ্রিল, ২০১৯ ২১:৫৬:১৮
#

কৌশলে ইয়াবা রেখে এক দোকানিকে ফাঁসানোর চেষ্টা করেছে পুলিশের কয়েকজন সদস্য।


এ অভিযোগে ওই পুলিশ সদস্যদের আটকে রেখে বিচারের দাবিতে সড়ক অবরোধ করেছে উত্তেজিত জনতা।


গতরাত ১০টার দিকে ময়মনসিংহের গৌরিপুরে রামগোপালপুর বাজারের এ ঘটনা ঘটে। পরে রাত সাড়ে ১২ টার দিকে বিচারের আশ্বাসের প্রেক্ষিতে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক থেকে অবরোধ তুলে নেয় তারা।


এ সময় অভিযোগ প্রমাণিত হলে ওই পুলিশ সদস্যদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলে তাদেরকে থানায় ফিরিয়ে নিয়ে যান উর্ধতন কর্মকর্তারা।


স্থানীয়রা জানান, ওই বাজারের একটি ফ্লেক্সিলোডের দোকানে ইয়াবা রাখার অভিযোগ এনে ব্যবসায়ী খোকনকে আটক করে ময়মনসিংহের গৌরীপুর থানার পাঁচ পুলিশ সদস্য। পরে তাকে বেদম মারধর করা হয়। একপর্যায়ে তিনি জ্ঞান হারান।


স্থানীয়রা জানান, উপজেলার রামগোপালপুর ইউনিয়নের বলুহা গ্রামের আবদুল কুদ্দুসের ছেলে ব্যবসায়ী খোকন মিয়া (৩০) ইয়াবা বিক্রি করেন বলে গৌরীপুর থানার পুলিশকে তথ্য দেওয়া হয়।


এমন তথ্যে গৌরীপুর থানার এসআই আবদুল আউয়ালেরর নেতৃত্বে এসআই রুহুল আমিন, এএসআই আনোয়ার হোসেন ও কামরুল এবং কনস্টেবল আল আমিন রামগোপালপুর বাজারে খোকনের দোকানে যান। এক পর্যায়ে সাদা পোশাকের পুলিশ সদস্যরা খোকনের দোকানে তল্লাশি শুরু করলে স্থানীয়রা এগিয়ে যান।


এরপর খোকনের দোকানে একটি পুটলি পাওয়া যায় বলে পুলিশ জানালে বিষয়টি নিয়ে প্রতিবাদ জানান খোকন ও উপস্থিত লোকজন। এ সময় খোকনকে থাপ্পর ও বুকে ঘুষি দিলে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়লে স্থানীয়রা বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন। এরপর পুলিশ সদস্যদের ঘেরাও করে বিক্ষোভ শুরু করেন স্থানীয়রা।


এক পর্যায়ে ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ সড়ক অবরোধ করেন তারা। খবর পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থলে আসেন গৌরীপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাখের হোসেন সিদ্দিকী, উপজেলা চেয়ারম্যান মোফাজ্জল হোসেন ও রামগোপালপুরের ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল মামুন জনি। পরে তারা পরিস্থিতি শান্ত করলে স্থানীয়রা ১২টার দিকে সড়ক অবরোধ তুলে দেন।


স্থানীয় ফারুক হাসান নামের এক ব্যবসায়ী জানান, পুলিশ ইয়াবার একটি পুটলা দিয়ে খোকনকে ফাঁসানোর চেষ্টা করে। এসময় ভুক্তভোগী খোকনকে মারপিট করলে সে অজ্ঞান হয়ে পড়ে। বর্তমানে সে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।



এএস


 

Print