চলন্তবাসে নার্সকে গণধর্ষণের পর হত্যা, আটক ২

টাইম ডেস্ক
টাইম নিউজ বিডি,
০৮ মে, ২০১৯ ১৫:৪২:১৭
#

কটিয়াদী উপজেলায় সোমবার রাতে চলন্ত বাসে এক নার্সকে গণধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় বাসের চালক ও হেলপারকে আটক করেছে পুলিশ। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ কিশোরগঞ্জ সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।


নিহত নার্স শাহিনুর আক্তার তানিয়া (২৩) ঢাকার কল্যাণপুরে ইবনে সিনা মেডিকেল কলেজ অ্যান্ড হাসপাতালে সিনিয়র স্টাফ নার্স ছিলেন।


তানিয়া কটিয়াদী উপজেলার লোহাজুড়ি ইউনিয়নের বাহেরচর গ্রামের গিয়াস উদ্দিনের মেয়ে। কয়েক মাস আগে তানিয়ার মা মারা যান। বাবার সঙ্গে প্রথম রোজা রাখতে তানিয়া কটিয়াদী উপজেলার লোহাজুরীর গ্রামের বাড়িতে আসছিলেন। সোমবার সন্ধ্যার পর ঢাকার বিমানবন্দর এলাকা থেকে কটিয়াদীগামী স্বর্ণলতা পরিবহনে উঠেন তানিয়া। বাসে ওঠার পর বেশ কয়েকবার বাবার সঙ্গে তার কথা হয়।


সর্বশেষ গাজীপুর এলাকা পার হওয়ার সময় তানিয়ার সঙ্গে বাবা গিয়াস উদ্দিনের কথা হয়। সে হিসাবে রাত ১০টার দিকে বাসটি শেষ স্টপেজ কটিয়াদী বাসস্ট্যান্ডে পৌঁছানোর কথা। কিন্তু চালক বাসটি শেষ স্টপেজে না নিয়ে পাশের বাজিতপুর উপজেলার পিরিজপুর বাসস্ট্যান্ডের দিকে যায়।


স্বজনদের অভিযোগ, চলন্ত বাসে তানিয়াকে একা পেয়ে ধর্ষণ করেছে বাসের চালক ও হেলপার। এরপর তার গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর তারা লাশ পিরিজপুর এলাকায় ফেলে দিয়েছে। পথচারীরা তানিয়াকে উদ্ধার করে কটিয়াদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।


তানিয়ার ভাই ও বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সিনিয়র ব্রাদার বাদল মিয়ার অভিযোগ, ধর্ষণের পর গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে তার বোনকে হত্যা করা হয়েছে। তবে কটিয়াদী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শফিকুল ইসলাম বলেন, বাসে একা হয়ে ভয় পেয়ে মেয়েটি ঝাঁপ দিয়ে মারা গেছেন নাকি নির্যাতন ও হত্যার ঘটনা ঘটেছে, তা ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে নিশ্চিত হওয়া যাবে।


তিনি জানান, এ ঘটনায় স্বর্ণলতা পরিবহনের ওই বাসের চালক নুরুজ্জামান ও হেলপার লালনকে আটক করা হয়েছে। কটিয়াদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসকরা জানান, তানিয়ার ঠোঁটসহ শরীরের বিভিন্ন স্পর্শকাতর স্থানে নির্যাতনের চিহ্ন রয়েছে।


বাজিতপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আমিনুর রহমান জানান, লাশ কটিয়াদী মডেল থানা থেকে কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। লোহাজুরী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আতাহার উদ্দিন ভূঁইয়া রতন জানান, চলন্ত বাসে তানিয়াকে গণধর্ষণ শেষে ফেলে দেয়া হয়েছে।


জেড

Print