‘হোয়াটস অ্যাপে’ হামলা: জড়িত ইসরাইলি গ্রুপ!

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক
টাইম নিউজ বিডি,
১৪ মে, ২০১৯ ২১:৩৪:৩৫
#

বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় যোগাযোগ মাধ্যম হোয়াটস অ্যাপে সাইবার হামলা হয়েছে। হোয়াইট অ্যাপের মাধ্যমে ব্যাবহারকারীদের ওপর নজরদারি চালানোর জন্য এই সাইবার হামলা চালানো হয়।


ইসরাইলের প্রযুক্তি কোম্পানি এনএসও গ্রুপ এই হামলায় জড়িত থাকতে পারে বলে ব্রিটিশ দৈনিক ফিন্যান্সিয়াল টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।


সাইবার হামলা সম্পর্কে হোয়াটসঅ্যাপ বলছে, সরকারি মদদপুষ্ট কোনো বেসরকারি সংস্থা এতে জড়িত থাকতে পারে।


এই সাইবার হামলার মধ্য দিয়ে ১৫০ কোটি হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারীর মধ্যে কতজন নজরদারির শিকার হয়েছেন তা এখনও জানা যায় নি। মাসখানেক আগে এই হামলার বিষয়টি সাইবার নিরাপত্তা গবেষকদের নজরে আসে।


এদিকে, ফেসবুকের মালিকানাধীন হোয়াটস অ্যাপ গত শুক্রবার এই হামলার সঙ্গে জড়িত ক্রুটি দূর করতে পেরেছে বলে জানিয়েছে। হামলার ঝুঁকি কমানোর জন্য ব্যবহারকারীদেরকে হোয়াটস অ্যাপ আপডেট করার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।


‘সাইবার অস্ত্রের ব্যবসায়ী’হিসেবে পরিচিত এনএসও গ্রুপের তৈরি ‘পেগাসাস’নামের স্পাইওয়্যারকে এই ঘটনার আগে থেকেই নজরদারি এবং তথ্য হাতিয়ে নেয়ার কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে। এদিয়ে সুনির্দিষ্ট ডিভাইস থেকে স্পর্শকাতর তথ্য সংগ্রহ করা ছাড়াও অবস্থানগত তথ্য, মাইক্রোফোন এবং ক্যামেরার তথ্যও হাতিয়ে নেয়া যায়।


এর আগে, সৌদি ভিন্ন মতাবলম্বী জামাল খাসোগির হত্যার ঘটনা কেন্দ্র করে এনএসও গ্রুপের নাম উঠে আসে। খাসোগির ওপর নজরদারি চালাতে এই গ্রুপের সফটওয়্যার ব্যবহার করা হয়েছে বলেও খবর প্রকাশিত হয়েছিল।


সাবেক মার্কিন গোয়েন্দা এডওয়ার্ড স্নোডেন তখন এই বিস্ফোরক তথ্য দিয়েছিলেন। তিনি বলেছিলেন,  খাসোগি হত্যায় ইহুদিবাদী ইসরাইলি ‘স্পাইওয়্যার’ব্যবহার করা হয়েছে। খাসোগির ওপর নজরদারিতে সৌদিকে স্পাইওয়ার যুগিয়েছে এই প্রযুক্তি কোম্পানি।


আমেরিকার কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ’র সাবেক সদস্য স্নোডেন মার্কিন ইন্টারনেট নজরদারি কর্মসূচি প্রিজম প্রকল্পের তথ্য ২০১৩ সালে ফাঁস করে দিয়ে বিশ্বজুড়ে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু হয়ে উঠেছিলেন।


সর্বশেষ সাইবার হামলায় ‘পেগাসাস’এর উন্নত সংস্করণ ব্যবহার করা হতে পারে বলে আশংকা ব্যক্ত করেছেন অনেকেই। এই জন্য হোয়াটস অ্যাপ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে এক ধরণের বোঝাপড়াও হয়ে থাকতে পারে।


মাসখানেক আগে গবেষকরা এই হামলার বিষয়টি আঁচ করতে পারলেও কেনও হোয়াটস অ্যাপ কর্তৃপক্ষ সতর্ক হয় নি সে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকেই। তারা বলছেন, হয়ত পুরো ঘটনা দেখেও না দেখার ভান করে ছিল তারা। কিন্তু এই সংক্রান্ত খবর প্রকাশিত হওয়ার পর এখন সুর পাল্টিয়েছে হোয়াটস অ্যাপ। 


এমবি    

Print