অভাবের তাড়নায় ফের দুই সন্তানকে হত্যার পর মায়ের আত্মহত্যা

বেনাপোল প্রতিনিধি
টাইম নিউজ বিডি,
২৭ মে, ২০১৯ ১৫:১৮:১৬
#

যশোরের শার্শা উপজেলার চালিতাবাড়ীয়া-দীঘা গ্রামে ঈদে সন্তানদের নতুন জামাকাপড় কিনে দিতে না পেরে ও সাংসারিক অভাব অনটনের দায় এড়াতে দুই সন্তানকে হত্যার পর আত্মহত্যা করেছেন মা।


নিহত দুই সন্তানের নাম শরিফা খাতুন (১১) ও সোহান হোসেন (৪) এবং তাদের মায়ের নাম হামিদা খাতুন (৩৫)। দুই সন্তানকে কীটনাশক ট্যাবলেট খাইয়ে হত্যার পর নিজেও একই ট্যাবলেট খেয়ে আত্মহত্যা করেন হামিদা খাতুন।


রবিবার রাত আনুমানিক ১১টার সময় এ ঘটনা ঘটে। নিহত ৩ জনই হলেন একই গ্রামের হতদরিদ্র চা দোকানী ইব্রাহিমের স্ত্রী, কন্যা ও শিশু পুত্র।


পারিবার ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, সবসময় অভাব অনটন লেগে থাকে পরিবারটির মাঝে। যার জন্য প্রায়ই দেখা যায় স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া অথবা স্ত্রী হামিদা খাতুনের সাথে শাশুড়ির ঝগড়া।


গতকাল রোববার আসন্ন ঈদে সন্তানদের নতুন জামা কাপড় কেনাকাটাসহ সাংসারিক অভাব অনাটনের নানা বিষয় নিয়ে রাত আনুমানিক ১০টায় স্বামী ইব্রাহিমের সাথে স্ত্রী হামিদা খাতুনের তুমুল ঝগড়া হয়। ঝগড়া শেষে হামিদা খাতুন প্রথমে দুই সন্তান শরিফা ও শিশু পুত্র সোহানকে কীটনাশক ট্যাবলেট খাইয়ে হত্যা করে। তারপর একই ট্যাবলেট খেয়ে নিজেও আত্মহত্যা করেন। এ ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।


বাগআঁচড়া পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সুখদেব রায় বলেন, রোববার রাত ১১টার দিকে ঘটনাটি ঘটে। স্থানীয়দের কাছ থেকে সংবাদ পেয়ে রাতে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে পারিবারিক কলহ থেকে এ হত্যাকাণ্ড সংগঠিত হয়েছে। বিষয়টি আরও গভীরভাবে তদন্ত করা হচ্ছে।


এ ঘটনায় নিহত হামিদা খাতুনের শ্বশুড়-শ্বাশুড়ি ও এক প্রতিবেশীকে (সিদ্দিক) আটক করেছে পুলিশ।


উল্লেখ্য, এর আগে গত শনিবার নরসিংদীতে অভাবে তাড়নায় দুই সন্তানকে শ্বাসরোধ হত্যা করে এক বাবা।


নাসির/জেড


 


 

Print