বাংলাদেশের কাছে হেরে শোকে অবসর নিতে চেয়েছিলেন টেন্ডুলকার

স্পোটর্স ডেস্ক
টাইম নিউজ বিডি,
০৫ জুন, ২০১৯ ১৮:৩৯:২৪
#

বীরেন্দ্র শেবাগ, শচীন টেন্ডুলকার, সৌরভ গাঙ্গুলী, রাহুল দ্রাবিড়, মোহাম্মদ কাইফ- এই নামগুলো শোনার পর যেকোনও ক্রিকেটপাগল মানুষে তাদেরকে কিংবদন্তিতূল্যদের সারিতে বসাবেন নির্দিধায়। অথচ এই তারকায় ঠাসা দলটিই কিনা ২০০৭ বিশ্বকাপে লজ্জার হার বরণ করেছিল অপেক্ষাকৃত দুর্বল ও পুচকে বাংলাদেশের কাছে। এমনকি এই হার ভারতকে বিশ্বকাপের প্রথম রাউন্ড থেকেই বিদায় করে দিয়েছিল। যে শচীন ব্যাট হাতে ২২ গজে রানের ফুলঝুড়ি ছড়ান সেই-ই কিনা ওই বিশ্বকাপের তিন ম্যাচে করেছিলেন মাত্র ৬৪ রান!

আজ বিশ্বকাপের পৃথক ম্যাচে মাঠে নামছে ভারত ও বাংলাদেশ। এই দিনে স্মরণ করা যাক ‘লিটল মাস্টার’ শচীন টেন্ডুলকারের সেই কথাগুলো। 

২০০৭ বিশ্বকাপে দুর্বল বাংলাদেশের কাছে হারের পর নাকি ক্রিকেটটাই ছেড়ে দিতে চেয়েছিলেন শচীন। কিন্তু ব্যাটিংগুরু ভিভ রিচার্ডের কথায় সেদিন শান্ত হয়েছিলেন টেন্ডুলকার। 

সম্প্রতি ইন্ডিয়া টুডে আয়োজিত ‘সালাম ক্রিকেট ২০১৯’ নামে একটি আয়োজনে টেন্ডুলকার সেই দিনগুলোর স্মৃতিচারণ করেন।


পাঠকের জন্য তার কথাগুলো তুলে ধরা হলো: 

‘আমার তখন মনে হয়েছিল এটাই শেষ। ভারতীয় ক্রিকেটকে ঘিরে তখন এমন অনেক ঘটনা ঘটছিল যা মোটেই গ্রহণযোগ্য ছিল না। আমাদের নির্দিষ্ট কিছু জায়গায় পরিবর্তনের দরকার ছিল, আমার মনে হয়েছিল যদি আকাঙ্ক্ষিত পরিবর্তনগুলো যদি না হয়, তাহলে আমি খেলা ছেড়ে দেব। আমার সিদ্ধান্ত নিয়ে আমি প্রায় ৯০ শতাংশ নিশ্চিত ছিলাম। কিন্তু আমার ভাই তখন আমাকে বলেছিল যে, ২০১১ বিশ্বকাপ ভারতে, তুমি কি সেই বিশ্বকাপ জয় করে ট্রফি উঁচিয়ে ধরতে চাও না?’

‘তারপর আমি আমার খামারবাড়িতে যাই। সেখানে আমার কাছে স্যার ভিভের ফোন আসে, তিনি আমাকে ক্রিকেট না ছাড়তে পরামর্শ দেন। তিনি বলেন, তোমার এখনো অনেক ক্রিকেট বাকি আছে। প্রায় ৪৫ মিনিট ভিভের সঙ্গে কথা হয় আমার, তার কথা আমাকে খুবই প্রভাবিত করে। যখন আপনার ব্যাটিং হিরো আপনাকে ফোন করে সেটি অবশ্যই দারুণ ব্যাপার। সেই মুহূর্তেই আমি আমার সিদ্ধান্ত বদলাই, আর এরপর পারফরমেন্সেও অনেক উন্নতি আসে।’

শচীন টেন্ডুলকারের ক্রিকেট ক্যারিয়াররা রূপকথার মতো। ওয়ানডে ক্রিকেটে এক ইনিংসে প্রথম ২০০ রান করার রেকর্ডটা তাঁর। তিনি শততম সেঞ্চুরিরও মালিক। কোনও এক বিশ্বকাপে ভারতীয়দের মধ্যে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকও তিনি। ২০১১ বিশ্বকাপে ৯ ম্যাচে ৪৮২ রান করে ভারতকে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন করার পথে বড় ভূমিকা ছিল ‘লিটল মাস্টারের’।


এসএম

Print