নয়ন বন্ড নিহত: যা বললেন রিফাতের বাবা ও স্ত্রী মিন্নি

স্টাফ রিপোর্টার
টাইম নিউজ বিডি,
০২ জুলাই, ২০১৯ ১৭:৩২:১০
#

বরগুনায় দিনে-দুপুরে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা করা হয় রিফাত শরীফকে। এ ঘটনায় স্তম্ভিত হয়ে পড়েছে বরগুনাসহ সারাদেশ। এই হত্যাকাণ্ডে কেউ হারিয়েছে একমাত্র আদরের সন্তান আবার কেউ হারিয়েছে স্বামী।


এরই মধ্যে রিফাত হত্যাকাণ্ডে জড়িত প্রধান আসামী নয়ন বন্ড পুলিশের সাথে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছেন। তার নিহতের খবর শুনে নির্মম হত্যার শিকার রিফাতের আত্মীয় স্বজনের মধ্যে কিছুটা স্বস্ত্বি মিললেও কর্তৃপক্ষের কাছে এখনো রয়ে গেছে তাদের কিছু চাওয়া।


নয়নের হত্যার খবর শুনে যা বলনেল রিফাতের বাবা ও স্ত্রী মিন্নি:


নয়ন বন্ড 'বন্দুকযুদ্ধে' নিহতের খবর শোনে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যার শিকার রিফাত শরীফের বাবা দুলাল শরীফ বলেন, বন্দুকযুদ্ধে নিহত হওয়ার খবরটি শুনেছি। আমার খুব ভালো লাগছে যে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর এত দিনের পরিশ্রম সার্থক হয়েছে। সর্বপরি আমি ধন্যবাদ জানাই প্রধানমন্ত্রীকে, যার নির্দেশে জিরো টলারেন্স ঘোষণার পরই প্রশাসন তৎপর হয়েছে। তারা খুবই কষ্ট করেছে। তারা রাত-দিন কাজ করে আসামিদের ধরেছে। গত রাতে নয়ন বন্ড বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছে, এতে আমার ছেলের আত্মা যদি একটু শান্তি পায়। এই নয়ন বন্ড বাহিনীর সঙ্গে যারা প্র্রত্যক্ষ পরোক্ষ ভাবে জড়িত তারা প্রত্যেকেই যেন শাস্তি পায়।


এদিকে স্বামী রিফাত শরীফের খুনি নয়ন বন্ডের নিহতের খবর শুনে স্ত্রী মিন্নি বলেন, প্রকাশ্যে দিবালোকে চোখের সামনে আমার স্বামীকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এর চেয়ে কষ্টের আর কী হতে পারে। চিৎকার করে সাহায্য চেয়েছি, কেউ এগিয়ে আসেনি। বন্দুকযুদ্ধে খুনি নয়ন বন্ড মারা গেছে। আমি চাই আমার স্বামী হত্যায় যারা জড়িত তাদের প্রত্যেকের বিচার হোক। সবার ফাঁসি চাই আমি।


‘আমি নিজের এবং আমার পরিবারের সদস্যদের নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছিলাম। আজ নয়ন মারা যাওয়ায় আমি নিজেকে হালকা মনে করছি।’


উল্লেখ্য, রিফাত শরীফকে কুপিয়ে হত্যা মামলার প্রধান আসামি সাব্বির হোসেন নয়ন ওরফে নয়ন বন্ড পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হয়েছেন।


মঙ্গলবার ভোর আনুমানিক ৪টার পর জেলার পুরাকাটা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।​ বরগুনা সদর থানার ওসি আবির মোহাম্মদ হোসেন সংবাদ মাধ্যমকে খবরটি নিশ্চিত করেছেন।


পুলিশ জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রিফাত হত্যা মামলার প্রধান আসামি সাব্বির হোসেন নয়ন ওরফে নয়ন বন্ডকে গ্রেফতার করতে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আশরাফুল্লাহ তাহেরের নেতৃত্বে বরগুনা সদর উপজেলার বুড়ির চর ইউনিয়নের পুরাকাটা নামক এলাকায় অভিযান চালায় পুলিশ।


এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে গুলি চালায় নয়ন বন্ড ও তার সহযোগীরা। পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি চালায়। গোলাগুলির এক পর্যায়ে নয়ন বন্ড বাহিনী পিছু হটে।


পরে ঘটনাস্থলে তল্লাশি করে নয়ন বন্ডের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ঘটনাস্থল থেকে একটি পিস্তল, এক রাউন্ড গুলি, দুইটি শর্টগানের গুলির খোসা এবং তিনটি দেশীয় ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় চার পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন।


জেড

Print