মিষ্টি খাওয়া নিয়ে জাবিতে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপে গোলাগুলি, আহত বেড়ে ৬৫   

জাবি করেসপন্ডেন্ট
টাইম নিউজ বিডি,
০৪ জুলাই, ২০১৯ ০১:১৮:১৬
#

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) মিষ্টি খাওয়া নিয়ে মাওলানা ভাসানী হল ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল ছাত্রলীগের দু’গ্রুপে মধ্যে গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। এতে এক পুলিশ কর্মকর্তাসহ ৬৫ জনের মতো শিক্ষার্থী আহত হয়েছে। সংঘর্ষের সময় দু’গ্রুপের মধ্যে গুলিবিনিময় হয়।


আজ (০৩ জুলাই) বুধবার দুপুর আড়াইটার দিকে দুই আবাসিক হলের সংযোগস্থল বটতলা মোড়ে এই সংঘর্ষ শুরু হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে ক্যাম্পাসে পাঁচ প্লাটুন পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।  তাৎক্ষণিকভাবে হতাহতদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।


প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মিষ্টি খাওয়া নিয়ে বটতলা মোড়ে দুই আবাসিক হল শাখা ছাত্রলীগের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এরপর দুই হলের নেতাকর্মীরা বটতলায় জড়ো হলে ব্যাপক সংঘর্ষ বাধে। সংঘর্ষে দুই হলের ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা পিস্তল, রামদা, রড, হকিস্টিক নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় দু’গ্রুপের মধ্যে অন্তত ৮ রাউন্ড গুলিবিনিময় হয়।



সংঘর্ষের খবর পেয়ে বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে আশুলিয়া থানা-পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। রাবার বুলেট ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে তারা। সন্ধ্যা ৭টার সময় এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত পুলিশ বটতলায় অবস্থান করছে। দুই হলের শিক্ষার্থীরাও হলে অবস্থান করছে।



বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর আ স ম ফিরোজ-উল হাসান বলেন, “বটতলায় ছোটখাটো বিষয় নিয়ে দুই হলের শিক্ষার্থীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা শুরু হয়। পরে পুলিশ ডাকা হয়েছে। এখন পরিস্থিতি কিছুটা নিয়ন্ত্রণে। তবে আরও সংঘর্ষ হওয়ার আশঙ্কা আছে।”


বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসা কেন্দ্রের উপ-প্রধান চিকিৎসা কর্মকর্তা রিজওয়ানুর রহমান বলেন, সংঘর্ষের ঘটনায় ৬৫ জন শিক্ষার্থী বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসা কেন্দ্রে চিকিৎসা নিয়েছেন। এর মধ্যে অন্তত ৩৫ জনের জখমের পরিমাণ গুরুতর হওয়ায় তাঁদের সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।



তিনি জানান, যাঁদের এনাম মেডিকেলে পাঠানো হয়েছে তাঁদের মধ্যে বেশ কয়েকজন রাবার বুলেটের আঘাতে আহত হয়েছেন। অন্যদের ইটের আঘাতে মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে গুরুতর জখম হয়েছে। এসব শিক্ষার্থীদের পূর্ণাঙ্গ চিকিৎসা বিশ্ববিদ্যালয়ে দেওয়া সম্ভব হয়নি।  


এমবি 


 

Print