রিফাতকে কুপিয়ে হত্যা: রাব্বী ও কামরুল রিমান্ডে

বগুড়া করেসপন্ডেন্ট
টাইম নিউজ বিডি,
১৩ জুলাই, ২০১৯ ০১:০৫:৫১
#

প্রকাশ্য দিবালোকে শাহ নেয়াজ রিফাত শরীফকে কুপিয়ে হত্যা মামলায় এজাহারভুক্ত আসামি রাব্বী আকনকে ৭ দিন আর সন্দেহভাজন কামরুল হাসান সাইমুনকে ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।


শুক্রবার (১২ জুলাই)বিকেলে বরগুনার জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম গাজী এই আদেশ দেন।


রিমান্ডের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সদর থানার পরিদর্শক মো. হুমায়ুন কবির।


গত ২৫ জুন জেলা শহরের কলেজ রোডে রিফাতকে (২৩) তার স্ত্রীর সামনে কুপিয়ে হত্যা করে একদল যুবক। রিফাতের বাবা দুলাল শরীফ ১২ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত কয়েকজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। মামলার ১ নম্বর আসামি ‘নয়ন বন্ড’ গত মঙ্গলবার কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হন।


পরিদর্শক হুমায়ুন বলেন, মামলার এজাহারভূক্ত ৬ নম্বর আসামি রাব্বী আকনকে ১০ দিন আর সন্দেহভাজন আসামি কামরুলকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৫ দিনের হেফাজতে চেয়ে আবেদন করেছিল পুলিশ। আসামিদের উপস্থিতিতে শুনানি শেষে রাব্বীকে ৭ দিন আর কামরুলকে ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে আদালত।


এর আগে কামরুলকে প্রথম দফায় ৫ দিন আর দ্বিতীয় দফায় ৩ দিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ। তৃতীয় দফায় আবার তাকে ৩ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হল।


বরগুনা সদর উপজেলার বুড়িরচর ইউনিয়নের হাজারবিঘা গ্রামের কাওসার হোসেন লিটনের ছেলে কামরুলকে গত ৩ জুলাই পটুয়াখালী থানার পুলিশ গ্রেফতার করে। আর বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) রাত পৌনে ৯টায় বরগুনা শহর থেকে সদর উপজেলার বুড়িরচর ইউনিয়নের কেওড়াবুনিয়া গ্রামের আবুল কালামের ছেলে রাব্বীকে গ্রেফতার করে বরগুনা থানার পুলিশ।


জেলার পুলিশ সুপার মো. মারুফ হোসেন বলেন, শুক্রবার বিকেল পর্যন্ত রিফাত হত্যা মামলার এজাহারভূক্ত ছয়জনসহ মোট ১৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অন্যদেরও গেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।  


উল্লেখ্য, গত ২৬ জুন (বুধবার) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনের সড়কে স্ত্রীর সামনে প্রকাশ্যে রামদা দিয়ে শাহ নেয়াজ রিফাত শরীফকে(২৫) কুপিয়ে গুরুতর আহত করে একদল যুবক। রিফাতের স্ত্রী আয়েশা আক্তার মিন্নি হামলাকারীদের সঙ্গে লড়াই করেও তাদের দমাতে পারেননি। একাধারে রিফাতকে কুপিয়ে অস্ত্র উঁচিয়ে এলাকা ত্যাগ করে হামলাকারীরা।


গুরুতর আহত রিফাতকে এদিন বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে বিকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। এই ঘটনার ভিডিও সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হলে এনিয়ে দেশজুড়ে প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়।  


এমবি  

Print