বিক্ষোভের মুখে পদত্যাগ করেছেন হাইতির প্রধানমন্ত্রী

জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধি প্রতিবাদে কয়েকদিনের সহিংস বিক্ষোভের পর হাইতির প্রধানমন্ত্রী জ্যাক গাই লাফনটেন্ট পদত্যাগ করেছেন।

রাজধানী পোর্ট অব প্রিন্সে কংগ্রেসের নিম্নকক্ষে দেয়া এক ভাষণে তিনি বলেছেন, প্রেসিডেন্ট জোভেনেল মোয়সে তার পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেছেন। খবর বিবিসির।

তেলের ওপর ভর্তুকি তুলে নেয়ার সরকারি ঘোষণার পর দেশজুড়ে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ে। এ ঘটনায় কমপক্ষে চারজন নিহত হয়েছেন। এসময় দোকানপাট ও বিভিন্ন লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে।

এদিকে দেশজুড়ে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়লে লাফনটেন্টের বিরুদ্ধে কংগ্রেসে অনাস্থা ভোটের আহ্বান জানানো হয়। সরকারি ওই ঘোষণা অনুযায়ী, ভর্তুকি তুলে নিলে পেট্রোলের দাম ৩৮ শতাংশ, ডিজেলের দাম ৪৭ শতাংশ ও কেরোসিনের দাম ৫১ শতাংশ বৃদ্ধি পেত।

কিন্তু সরকারি ওই সিদ্ধান্তের পর রাজধানী পোর্ট অব প্রিন্স অচল করে দেয় বিক্ষোভকারীরা। এসময় কয়েক ডজন দোকানপাট ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলার ঘটনাও ঘটে। পরে অব্যাহত বিক্ষোভের মুখে সরকার তাদের সিদ্ধান্ত থেকে পিছু হটতে বাধ্য হয়।

দেশের অবকাঠামোগত উন্নয়নের জন্য গেল ফেব্রুয়ারি মাসে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ)-র সঙ্গে একটি চুক্তি সই করে হাইতি সরকার। আইএমএফ’র যুক্তি হচ্ছে জ্বালানি তেলের ওপর থেকে ভর্তুকি তুলে নিলে শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও চাকরি বাজারে অতিরিক্ত অর্থের যোগান হবে।

যদিও বিশ্বের অন্যতম দরিদ্রতম এই দেশের মানুষজন বলছে, সরকার তাদের আর্থিক অবস্থা সম্পর্কে ওয়াকিবহাল নয়।

জেড